অভয়নগরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি ॥ যশোরের অভয়নগরে পেটের যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে সাবানা খাতুন (৪০) নামে এক গৃহবধূ গলায় ওড়না পেঁচেয়ি আত্মহত্যা করেছেন। শনিবার (৮ মে) সকালে উপজেলার আমডাঙ্গা গ্রামে নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। তিনি আমডাঙ্গা গ্রামের অটোরাইস মিল শ্রমিক আব্দুল গফ্ফারের স্ত্রী।
পরিবারের সদস্যরা জানান, সাবানা খাতুন দীর্ঘদিন ধরে পেটের যন্ত্রণা ও ডায়াবেটিস সমস্যায় ভুগছিলেন। শনিবার সকাল আনুমানিক ১০ টার সময় তাঁর পেটের যন্ত্রণা অতিমাত্রায় বেড়ে গেলে নিজ ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। প্রায় এক ঘন্টা দরজা বন্ধ থাকার পর সাবানার কোন সাড়াশব্দ না পেলে ঘরের দরজা ভাঙ্গা হয়। এসময় ঘরের মধ্যে আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় সাবানার ঝুলন্ত দেহ পাওয়া যায়। উদ্ধার করে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।
মৃতের স্বামী আব্দুল গফ্ফার জানান, সকালে ঘুম থেকে উঠে আমি কর্মস্থলে চলে যায়। সকাল আনুমানিক সাড়ে ১০ টার সময় বাড়ির সদস্যরা ফোন করে মৃত্যুর খবর জানায়। আমার স্ত্রী দীর্ঘদিন ধরে পেটে টিউমার নিয়ে যন্ত্রণায় ভুগছিল। অতিমাত্রায় ডায়াবেটিস থাকায় তাঁর অপারেশন করা সম্ভব হয়নি। হাসপাতাল থেকে মরদেহ পুলিশ নিয়ে গেছে।
এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার এসআই নাসির উদ্দিন জানান, সাবানা খাতুন নামে এক গৃহবধুর গলায় ফাঁস দেওয়া মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আত্মহত্যা কি না তা ময়নাতদন্তের পর বলা সম্ভব হবে। মরদেহ যশোর মর্গে পাঠানো হয়েছে। অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

শেয়ার