বেনাপোলের দুর্গাপুরের নয়ন হত্যা মামলায় এক দম্পতির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরের বেনাপোলের দুর্গাপুর গ্রামের আলামিন হোসেন নয়ন হত্যা মামলায় এক দম্পতির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই রোকনুজ্জামান তদন্ত শেষে যশোর চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই চার্জশিট দাখিল করেন। আসামিরা হলো, দুর্গাপুর গ্রামের জহর আলী ও তার স্ত্রী কামরুন্নাহার।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ২৭ ডিসেম্বর রাতে বাড়ির সকলে খাওয়া দাওয়া করে ঘুমিয়ে পড়ে। নয়নকে সকালে বাড়ি না পেয়ে খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে প্রতিবেশী ইনতাজ আলীর নির্মাণাধীন বাড়ির ওয়ালের পাশ থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে স্বজনরা। নয়নের গলায় ফাঁস লাগিয়ে হত্যার পর লাশ ফেলে রেখে গেছে বলে জানতে পারে পুলিশ। এ ব্যাপারে নিহতের চাচা মুন্তাজ আলী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি দিয়ে হত্যা মামলা করেন।

তদন্ত সূত্রে জানা গেছে, আসামি কামরুন্নাহারের সাথে সাথে নয়নের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। স্বামী জানতে পেরে নিষেধ করায় কামরুন্নাহার সেই প্রেমের সম্পর্কের ইতি টানলেও তা মেনে নেয়নি নয়ন। এরপরও নয়ন তাকে প্রায়ই বিরক্ত করতো। বিষয়টি কামরুন্নাহার তার স্বামীকে জানিয়ে দেয়। এরপর তারা স্বামী-স্ত্রী দুইজনেই নয়নকে হত্যার পরিকল্পনা করে। ২৭ ডিসেম্বর রাতে নয়নকে পরিকল্পনা অনুযায়ী কামরুন্নাহার ডেকে ঘরের ওয়ালের পাশে দাঁড়িয়ে কথা বলছিল। এরই মধ্যে তার স্বামী জহর আলী ঘরের মধ্যে থেকে নয়নের গলায় দড়ি দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে টান দিয়ে ঝুঁলিয়ে দেয়। এরপর জহর আলী ও তার স্ত্রী দুইজন মিলে ১০ থেকে ২০ মিনিট ঝুঁলিয়ে রাখার পর নয়ন মারা গেলে তার লাশ ফেলে রেখে চলে যায়। তদন্ত শেষে আটক আসামিদের দেয়া জবানবন্দি ও স্বাক্ষীদের বক্তব্যে হত্যার সাথে জড়িত থাকায় ওই দুইজনকে অভিয্ক্তু করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

 

শেয়ার