যশোরে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য্য
বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে হেফাজত তাণ্ডব চালিয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য্য বলেছেন, বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে হেফাজত তাণ্ডব চালিয়েছে। পাকিস্তানি মদদপুষ্টদের সরাসরি অর্থায়নে তারা এ কার্যক্রম চালাচ্ছে। সারা দেশে যেখানেই তারা অরাজকতা চালাবে সেখানেই ছাত্রলীগ তাদের প্রতিহত করবে। এজন্য জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে নির্দেশনা দেয়া আছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। সোমবার দুপুরে নিজ জেলা যশোর শহরের বকুলতলাস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়েও বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা জানান।

তিনি আরো বলেন, আমরা ছাত্র ও তরুণ সমাজ আসলেই খুব হতাশ। জাতির পিতার নেতৃত্বে আমরা যে স্বাধীনতা অর্জন করেছিলাম; সেই স্বাধীনতার আমরা ৫০ বছর উদযাপন করছি। কিন্তু সেইসময় আমরা দেখতে পাচ্ছি ৭১’র স্বাধীনতাবিরোধী চক্র বাংলাদেশকে খারাপভাবে বহির্বিশ্বের কাছে উপস্থাপনের চেষ্টা করছে। তারা ৭৫’এ জাতির পিতাকে হত্যা করে বিশ্বের বুকে আমাদেরকে বিশ্বাসঘাতকের লেবাস লাগিয়ে দিয়েছিলো। ঠিক সেইভাবে আজকে যখন সারা বিশ্ব থেকে সরকার প্রধানরা বাংলাদেশে আসছে, ঠিক তখন ১০দিনব্যাপী সুবর্ণজয়ন্তীর উৎসবকে ভণ্ডুল করতে ও বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশকে হেয়প্রতিপন্ন করতে হেফাজতিরা উঠে পড়ে লেগেছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, একটি অগোছালো অবস্থায় ছাত্রলীগের দায়িত্ব নিয়েছিলাম। এরপর করোনার কারণে সবকিছু থমকে যায়। কিন্তু ছাত্রলীগ বসে থাকেনি, মানবিক ও সামাজিক কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে সাধারণ জনগণকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। যশোরে দুই বছর ধরে কমিটি নেই। তারপরও কিন্তু ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা সাধারণ মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। এটা স্পষ্ট ছাত্রলীগ নেতা হওয়ার জন্য নয় সাধারণ মানুষ ও ছাত্রদের সেবার জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার এমপি, সহসভাপতি আব্দুল মজিদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী প্রমুখ।

এর আগে শত শত ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ তাকে অভ্যর্থনা জানাতে শহরের দড়াটানা বকুলতলাস্থ বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ম্যুরালের সামনে অবস্থান নেন। এসময় তারা ছাত্রলীগ সেক্রেটারিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান শেষে লেখক ভট্টাচার্য্য যশোর পৌর নির্বাচনের মেয়র প্রার্থী হায়দার গণি খান পলাশের পক্ষে লিফলেট বিতরণ করেন। এরপর তিনি তার সফরসঙ্গী কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের বিভিন্ন নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নিজ গ্রাম যশোরের মণিরামপুরের উদ্দেশে রওনা হন।

শেয়ার