পৌরসভা নির্বাচনে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত
যশোর শহরের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে নৌকা জয়ী করুন : বিএম মোজাম্মেল

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আসন্ন যশোর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কর্মীসভায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি বিএম মোজাম্মেল হক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ বদলে গেছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে আগামী ২০৪১ সালে বাংলাদেশ হবে বিশে^র মধ্যে অন্যতম উন্নত রাষ্ট্র। আজ আমাদের দেশের মানুষ বিদেশে কাজ করতে যান। আর তখন বিদেশ থেকে আমাদের দেশে মানুষ কাজ করতে আসবে। এজন্য পরিকল্পিতভাবে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হচ্ছে। সেখানে বিনিয়োগ হচ্ছে। অবশ্যই আমরা সেই কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছাবো। মঙ্গলবার যশোরের বিডিহলে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধান অতিথি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যশোরের হায়দার গনি খান পলাশ সম্পর্কে জানেন। পলাশ দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করছেন। এজন্য শেখ হাসিনা তাকে যশোর পৌরসভায় দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন। পলাশের মাধ্যমে যশোরে অনেক উন্নয়ন পরিকল্পনা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। এজন্য নৌকায় ভোট দিয়ে আপনারা তাকে বিজয়ী করুন। যশোর শহর বদলে যাবে। প্রধান অতিথি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, এই নির্বাচনে নৌকা প্রতীক বিজয়ী করতে হবে। নির্বাচনের দিন সকাল সাতটার আগে জাতীয় পরিচয়পত্র সাথে নিয়ে ভোটকেন্দ্রে হাজির হতে হবে। লাইনে দেড়-দুশ’ ভোটার থাকতে হবে। এজন্য শুধু নিজেরাই নয়, পরিবারের সদস্যসহ সাধারণ ভোটারদের নিয়ে আসতে হবে। নৌকা আমাদের জয়ী করতেই হবে।
কর্মীসভা থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনকে আহ্বায়ক করে একটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়। প্রধান অতিথি এই কমিটি ঘোষণা করেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে কর্মীসভায় প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও যশোর-৬ আসনের এমপি শাহীন চাকলাদার। বিশেষ অতিথি ছিলেন যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। তবে নির্বাচনী আচরণবিধির কারণে কর্মীসভায় শাহীন চাকলাদার ও কাজী নাবিল আহমেদ বক্তব্য দেননি।

জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মুন্সি মহিউদ্দিনের পরিচালনায় কর্মীসভায় বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নৌকার প্রার্থী হায়দার গনি খান পলাশ, সহসভাপতি আব্দুল মজিদ, গোলাম মোস্তফা, আব্দুল খালেক, একেএম খয়রাত হোসেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, মীর জহুরুল ইসলাম, বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম আফজাল হোসেন ও মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরজাহান ইসলাম নীরা, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আসাদুজ্জামান আসাদ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহারুল ইসলাম, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহমুদ হাসান বিপু প্রমুখ।

কর্মীসভায় অধিকাংশ বক্তা নৌকার মেয়র প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণা বা পথসভা থেকে কোনো কাউন্সিলর প্রার্থীর পক্ষে ভোট না চাওয়ার পক্ষে মত দেন। তারা বলেন, আওয়ামী লীগ বড় দল। অনেকে এই নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী হয়েছেন। কিন্তু নৌকার প্রার্থীর পথসভা থেকে কোনো একজনের পক্ষে ভোট চাওয়া হলে অন্যরা রুষ্ট হবেন। এতে নৌকার ভোট কমে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কারণ ভোট হবে ইভিএমএ। ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে নিয়ে আসতে হবে।

শেয়ার