‘বলের নিয়ন্ত্রণ ও পুনরুদ্ধার’ জোর পাবে ডের অনুশীলনে

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ত্রিদেশীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলতে নেপালে যাওয়ার আগে প্রস্তুতির জন্য খুব বেশি সময় মিলছে না। জেমি ডে তাই অল্প সময়ের সর্বোচ্চ ব্যবহারে মনোযোগী। জানালেন, আপাতত বলের নিয়ন্ত্রণ এবং বল হারালে তা পুনরুদ্ধারে করণীয়টুকু গুরুত্ব পাবে ক্যাম্পের অনুশীলনে।
স্বাগতিক নেপাল ও কিরগিজস্তান অনূর্ধ্ব-২৩ দলের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে আগামী ১৮ মার্চে নেপাল যাবে বাংলাদেশ।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সোমবার শুরু হবে মূল অনুশীলন। দেশে প্রস্তুতির জন্য তিন দিন সময় পাচ্ছেন ডে। এই অল্প সময়ে ২৪ জনের চূড়ান্ত দলে ঠাঁই পাওয়া পাঁচ নতুনকেও কৌশল বোঝাতে হবে। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানালেন, এই স্বল্প সময়ে দলকে একটা কাঠামোতে আনতে চাওয়ার কথা।
“দেশে আমরা এখানে মাত্র তিন দিন অনুশীলন করতে পারব। তিন দিনের পরিকল্পনা সাজিয়েছি। দলকে একটা শেপে আনতে একটা বিষয়ে বেশি ফোকাস করব; সেটা হচ্ছে, বল পায়ে থাকলে এবং বল হারালে ছেলেদের করণীয়টা কি।”

সবশেষ গত দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে নেপালে অনূর্ধ্ব-২৩ দল নিয়ে গিয়ে ডের অভিজ্ঞতা সুখকর ছিল না। সোনার পদক জয়ের আশায় গিয়ে জুটেছিল ব্রোঞ্জ। এবার নেপালে সাফল্যের চেয়ে দলকে পরখ করে নেওয়ার দিকে মনোযোগী কোচ।

“নেপালে খেলাটা আমাদের জন্য সবসময়ই কঠিন। কিন্তু মনোযোগটা নতুন খেলোয়াড় যারা আছে, তাদেরকে আরও বেশি বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা দেওয়ার দিকে। যেহেতু আগামী জুনে আমাদের বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের ম্যাচ খেলতে কাতার যেতে হবে।”
প্রাথমিক সূচি অনুযায়ী আগামী ২৩ মার্চ প্রতিযোগিতার প্রথম ম্যাচ। পরের ম্যাচগুলো মাঠে গড়াবে ২৫, ২৭ এবং ২৯ তারিখে।

২০২২ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে আগামী ৩ জুন কাতারে আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। একই ভেন্যুতে ৭ জুন ভারতের বিপক্ষে এবং ১৫ জুনে ওমানের বিপক্ষে খেলবে দল।

শেয়ার