যশোরে পাওনা টাকা চাওয়ায় চা দোকানদারকে ছুরিকাঘাত

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে পাওনা টাকা চাওয়ায় জুয়েল হোসেন নামে এক চা দোকানদারকে ছুরিকাঘাত করে সাড়ে ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা। গতকাল বুধবার বিকেল ৪টার দিকে শহরের খড়কি গাজীর বাজার এলাকায় এই ঘটনার পর জুয়েলকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। আহত জুয়েল শহরের খড়কি দক্ষিণপাড়ার মৃত মুজিবর রহমানের ছেলে। এই ব্যাপারে আহত জুয়েলের মা ছায়রা বেগম বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে এদিনই কোতোয়ালি মডেল থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযুক্তরা হলো, শহরতলীর খোলাডাঙ্গা গ্রামের মফিজপাড়ার মহাসিন গাজী, তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম ও ছেলে ইমন, খোলাডাঙ্গা সার গোডাউন এলাকার মসিয়ার রহমানের ছেলে টগর, একই এলাকার লিয়ন ও শাহাদৎ।

ছায়রা বেগম মামলায় উল্লেখ করেছেন, তার ছেলে জুয়েল হোসেন খোলাডাঙ্গা গাজীর বাজারে একটি চায়ের দোকানে ব্যবসা করে। অভিযুক্ত মহাসিন জুয়েলের পূর্ব পরিচিত। সেকারণে এক সাথে ব্যবসা করার জন্য জুয়েল ইমনকে দুই লাখ টাকা দেন। কিন্তু ব্যবসা না করে ইমন নেশাগ্রস্ত হয়ে বিভিন্ন স্থানে ছিনতাই ও ডাকাতি করে বেড়ায়। তাকে ব্যবসা করতে দেয়া দুই লাখ টাকা আর ফেরত দেয়নি ইমন। এছাড়াও পূর্বের দুই লাখ টাকা না দিয়ে ফের জুয়েলের দোকান থেকে বাকিতে বিভিন্ন জিনিসপত্র নিতে আসে ইমন। গতকাল বুধবার ইমন দোকানে এসে বাকিতে সিগারেট চাওয়ার সময় জুয়েল তার কাছে পাওনা পূর্বের দুই লাখ টাকা দাবি করেন। এসময় ক্ষিপ্ত হয়ে সহযোগিতা মিলে জুয়েলকে ছুরিকাঘাত করে। এসময় জুয়েলের কাছে থাকা সাড়ে ১০ হাজার টাকা নিয়ে নেয় ওই সন্ত্রাসীরা। এরপর স্থানীয়রা জুয়েলকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় ওই সময়েই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউ আটক হয়নি।

শেয়ার