যশোরে সিমেন্টের দোকানে চাঁদা আনতে যাওয়া চাঁদাবাজকে গণপিটুনি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে সিমেন্টের দোকানে চাঁদা আনতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হয়েছেন রফিকুল ইসলাম নামে এক সন্ত্রাসী। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে শহরের বেজপাড়া চিরুনি কল এলাকায় এই ঘটনার পর ভুক্তভোগী তপন কুমার দাস বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেছেন। শহরের বেজপাড়া রানার অফিস এলাকার বাসিন্দা তপন কুমার দাস বলেছেন, চিরুনি কল এলাকায় উপমা ট্রেডার্স নামে একটি সিমেন্টের দোকানে তিনি ম্যানেজার পদে চাকরি করেন। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি দুপুরে তপনের এক নারী আত্মীয়কে শহর থেকে চিকিৎসা শেষে রিক্সায় চড়ে আত্মীয়ের আরবপুরের বাসায় যাচ্ছিলেন। পুরাতন কসবা বিমান অফিস মোড়ে রবিউল পান স্টোরের সামনে পৌছানোর পর রফিকুলসহ কয়েকজন দুর্বৃত্ত তপন ও তার আত্মীয়ের রিক্সার গতিরোধ করে। এসময় তার আত্মীয় সম্পর্কে নানা ধরধের প্রশ্ন তুলে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। ওই সময় মানইজ্জতের ভয়ে তপন ওই দুর্বৃত্তদের ভয়ে চাঁদা স্বরুপ ১০ হাজার টাকা দিয়েছেন। তবে লোকলজ্জার ভয়ে বিষয়টি কাউকে বলতে পারেননি তপন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদার বাকি টাকা আনতে বেজপাড়া চিরুনী কল এলাকায় যান রফিসহ কয়েকজন। এরপর তপন কৌশলে পাশে একটি দোকানে বসতে বলে তার পরিচিত লোকজনদের মোবাইল ফোনে ডেকে আনেন। স্থানীয়দের উপস্থিতি টের পেয়ে রফিকের সাথে থাকা কয়েকজন পালিয়ে গেলেও তিনি গণপিটুনির শিকার হন। এরপর তাকে পুলিশের সোপর্দ করে এলাকাবাসী। আটক রফিক রেলগেট এলাকার মৃত মনিরুজ্জামানের ছেলে। এব্যাপারে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ তাসমীম আলম জানান, রফিক একটি চাঁদাবাজি মামলার আসামি। বেজপাড়া চিরুনি কল এলাকার তপন নামে এক ব্যক্তি মামলাটি করেছেন।

শেয়ার