সদ্যভূমিষ্ঠ সন্তান নিয়ে স্বামী হত্যার বিচার চাইলেন গৃহবধূ

বাঘারপাড়ার আ’লীগকর্মী টিটো খুনের বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ১৫ দিন বয়সের কন্যা সন্তান কোলে নিয়ে স্বামী হত্যার বিচার এবং সকল আসামিদের আটক দাবি করেছেন নিহত খালেদুর রহমান টিটোর স্ত্রী রোশনারা খাতুন। একই সাথে বিচার কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই মামলার প্রধান আসামি দ্বীন মোহাম্মদ দিলু পাটোয়ারীকে জামিন না দেয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানানো হয়। গত ৯ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় বাঘারপাড়া উপজেলার বেতালপাড়া গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় খুন হন জহুরপুর ইউনিয়ন তরুণ লীগের সভাপতি খালেদুর রহমান টিটো।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিহতের চাচা ইন্তাজ আলী। এসময় উপস্থিত ছিলেন, নিহত টিটোর তিন বছর বয়সের ছেলে রিফাত হোসেন, তার পিতা মোন্তাজ মোল্যা, তার স্ত্রী রোশনারা খাতুন, প্রতিবেশী চান মিয়া, আবুল কালাম আজাদ, মশিউর রহমান, বদর উদ্দিন প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়েছে, টিটো জহুরপুর ইউনিয়ন তরুণ লীগের সভাপতি ছিলেন। গত ১০ ডিসেম্বর বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের পক্ষের কর্মী ও এজেন্ট ছিলেন। এতে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী দ্বীন মোহাম্মদ পাটোয়ারী দিলু তার উপর ক্ষিপ্ত হন। এক পর্যায় ৯ ডিসেম্বর সন্ধ্যার পরে দিলু পাটোয়ারীর নির্দেশে তার ভাই নূর মোহাম্মদ পাটোয়ারীর নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে টিটোকে মারাত্মক আহত করা হয়। তাকে প্রথমে যশোর এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে টিটো মারা যান। এই ঘটনায় নিহতের ভাই বদর উদ্দিন বাদী হয়ে বাঘারপাড়া থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় ১৭ জনকে আসামি করা হয়। এর মধ্যে হত্যাকাণ্ডে নেতৃত্ব দেয়া দিলু পাটোয়ারী ও তার ভাই নূর মোহাম্মদ পাটোয়ারীসহ কয়েকজন জেলহাজতে আটক রয়েছেন। বাকিরা এখনো আটক হয়নি। সে কারণে বিচারক কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত পলাতকদের আটক ও জেলহাজতে থাকা আসামিদের আটক রাখার জন্য সংবাদ সম্মেলনে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার