কলেজ ছাত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর সরকারি এমএম কলেজের এক ছাত্রীর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগে আদালতে মামলা হয়েছে। তিনজনকে আসামি করে গতকাল সোমবার বাঘারপাড়া উপজেলার নারিকেলবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা ওই ছাত্রীর এক স্বজন যশোর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই মামলা করেন।

বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম মামলাটি গ্রহণের পর তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছেন।

আসামিরা হলো, মাগুরার শালিখা উপজেলার জুনারী গ্রামের নুর মিয়ার ছেলে রাসেল হোসেন, মৃত শাহাদৎ হেসেনের ছেলে জাফর হোসেন ও নুর মিয়ার জামাই মানিক।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, খালা বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার সুবাদে আসামিদের সাথে ওই ছাত্রীর পরিচয় হয়। এরপর আসমি রাসেল হোসেন ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। প্রেমের সম্পর্কের একপর্যায়ে আসামি রাসেল সৌদি আরবে চলে যায়। সৌদি আরব থেকে ওই ছাত্রীর সাথে ইমোতে যোগাযোগ করে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দিয়ে কথা বলতো রাসেল। মাঝেমধ্যে রাসেল নিজে নগ্ন হয়ে ওই ছাত্রীকে নগ্ন হতে বলতো। ছাত্রী নগ্ন হতে রাজী না হলে তাকে বিয়ে করবেনা বলে হুমকি দিতো রাসেল। বাধ্য হয়ে ওই ছাত্রী অর্ধনগ্ন হয়ে রাসেলের সাথে ভিডিও কলে কথা বলতো। সুচতুর রাসেল ভিডিও কলের কথা ও ছবি ওই ছাত্রীকে না জানিয়ে সংরক্ষণ করে রাখতো। কিছুদিনের মধ্যে রাসেলকে বিয়ের কথা বলা হলে নানা টালবাহানা শুরু করে। এরপর রাসেল তার কাছে ৫ লাখ টাকা দাবি করে, অন্যথায় ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। বিষয়টি অপর দুই আসামির কাছে জানানো হলে তারাও টাকা দাবি করে। ২০২০ সালের ১ জুলাই আসামি ওই ছাত্রীর পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করে তার আইডি দিয়ে একটি গ্রুপ তৈরী করে অর্ধনগ্ন ছবি আপলোড করে। এরপর ফেসবুকে একটি আইডি খুলে ওই ছবি আপলোড করে। এরপর রাসেলের দাবিকৃত টাকা না দেয়ায় নানা ভাবে হুমকি দিচ্ছে। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসা ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এই মামলা করেছেন।

শেয়ার