বিএফএফ-সমকাল জাতীয় বিজ্ঞান বিতর্ক উৎসব
যশোর জিলা স্কুল জেলার সেরা রানারআপ সকিনা বালিকা বিদ্যালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ করোনা মহামারি টানা একবছর শিক্ষার্থীদের ঘরে আটকে রাখলেও তাদের জানার আগ্রহকে মোটেও দমিয়ে রাখতে পারেনি। বাড়িতে বসেই বই পড়ে অথবা আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে জ্ঞান অন্বেষণ অব্যাহত রেখেছিল তারা। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও ভিন্ন উপায়ে পাশে ছিলেন শিক্ষকরাও। শনিবার যশোর শিল্পকলা একাডেমির আর্ট গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত বিজ্ঞানমনস্ক যুক্তিবাদী তরুণদের তর্কযুদ্ধ সেটা প্রমাণ করেছে। ক্ষুদে বিতার্কিকদের যুক্তি-পাল্টাযুক্তি, এমন বাহাস পিনপতন নীরবতায় উপভোগ করেন সবাই।

দৈনিক সমকাল ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের (বিএফএফ) উদ্যোগে এদিন যশোরে অনুষ্ঠিত হয় বিএফএফ-সমকাল জাতীয় বিজ্ঞান বিতর্ক উৎসব-২০২১ এর যশোর জেলা পর্ব। করোনা পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আয়োজিত এ উৎসবকে ঘিরে আর্ট গ্যালারি পরিণত হয়েছিল তারুণ্যের মিছিলে।

‘বিতর্ক মানেই যুক্তি, বিজ্ঞানে মুক্তি’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সকালে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম।

সমকাল সুহৃদ সমাবেশের সভাপতি অ্যাডভোকেট আমিনুর রহমান হিরুর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট মোস্তফা হুমায়ূন কবীর, মাইকেল মধুসূদন ডিবেট ফেডারেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান জহির ইকবাল নান্নু, যশোর সুহৃদ সমাবেশের সাধারণ সম্পাদক সুকান্ত দাস। সঞ্চালনায় ছিলেন শ্রাবণী আক্তার।

এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রতিযোগিতার সমন্বয়ক দৈনিক সমকালের স্টাফ রিপোর্টার এসএম তৌহিদুর রহমান, প্রেসক্লাব যশোরের যুগ্ম সম্পাদক সরোয়ার হোসেন, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিলন রহমান, সুহৃদ সমাবেশের সহসভাপতি নবনীতা সাহা তপু, দেশসেরা বিতার্কিক সানজিদা ইয়াসমিন অপি, মাইকেল মধুসূদন ডিবেট ফেডারেশনের চেয়ারম্যান বায়েজিত মাহমুদ অভি, চ্যানের টুয়েন্টিফোরের ইমরান হোসেন, সুহৃদ সদস্য সাদিয়া, ইউনুস, হিরণ, শাহিন আরা প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম বলেন, উন্নত জীবন যাপন মান সম্পন্ন রাষ্ট্র মানেই বিজ্ঞানে এগিয়ে থাকা রাষ্ট্র। তাই রাষ্ট্র হিসেবে উৎকর্ষ লাভে বিজ্ঞান শিক্ষার বিকল্প নেই। তরুণ প্রজš§কে বিজ্ঞানে আগ্রহী এবং তাদের মধ্যে যুক্তিবাদী একটি মানস গড়ে দিতে পারে বিজ্ঞান বিষয়ক বিতর্ক। তিনি তরুণদেরকে বিজ্ঞানের সদ্ব্যবহারে উৎসাহিত ও অপব্যবহারে নিরুৎসাহিত করার ব্যাপারে ভূমিকা রাখার জন্য আহবান জানান।

দিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় জেলার ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এরমধ্যে নিজেদের শ্রেষ্ঠ প্রমাণ করে যশোর জিলাস্কুল চ্যাম্পিয়ন ও সকিনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় রানারআপ হয়। সেরা বিতার্কিক নির্বাচিত হন চ্যাম্পিয়ন দলের ওহিদুজ্জামান গালিব। চ্যাম্পিয়ন দলের অপর দু’বিতার্কিক হলেন আশফাকুর রহমান ও তাসাওউফ আহনাফ। রানারআপ সকিনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বিতার্কিকরা হলেন ফারহানা জান্নাত, নাদিয়া আক্তার নদী ও সাকিরা শারমিন এশা।

অংশগ্রহণকারী অন্য দলগুলো হচ্ছে যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, যশোর কালেক্টরেট স্কুল, ডাকাতিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, যশোর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, শংকরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও নওয়াপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন সাংবাদিক-মানবাধিকার সংগঠক সরোয়ার হোসেন, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও শিশু সাহিত্যিক মিলন রহমান, দেশসেরা বিতার্কিক জহির ইকবাল নান্নু, সানজিদা ইয়াসমিন অপি, বায়েজিত মাহমুদ অভি প্রমুখ।

প্রতিযোগিতা শেষে বিকালে বিচারক-অতিথিরা অংশগ্রহণকারিদের মাঝে ক্রেস্ট, মেডেল ও সনদ বিতরণ করা হয়।

শেয়ার