কালিয়ায় সালিশ বৈঠকের মারপিটে আহত মসজিদের ইমামের মৃত্যু

জিহাদুল ইসলাম, কালিয়া॥ বোনের বাড়িতে জমির সালিশ দেখতে গিয়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত নড়াইলের কালিয়ার পাটেশ্বরী জামে মসজিদের ইমাম আল আমিন শেখ (২৮) মারা গেছেন। শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার মহিষখোলা গ্রামের আবুল হোসেন শেখের ছেলে। এঘটনায় কালিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরআগে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত ইমামসহ ৮ জন আহত হন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার মষিখোলা গ্রামের রেজাউল বিশ্বাস ও মাহাবুবুর রহমান কালুর মধ্যে দীর্ঘ দিন যাবত জমির বিরোধ চলে আসছিল। এরই মধ্যে কালু রেজাউলের উঠান দখল করে একটি বাথরুম তৈরি করতে গেলে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ দেখা দেয়। বিরোধটি মিমাংশার জন্য গত ১৬ ফেব্রুয়ারি বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে স্থানীয়রা উভয়পক্ষকে নিয়ে সেখানে সালিশ বৈঠকে বসেন। বোনের বাড়ির সালিশ বৈঠকে রেজাউলের শ্যালক আল আমিন উপস্থিত ছিলেন। সালিশ বৈঠকের এক পর্যায়ে কথাকাটাকাটির জের ধরে কালু গ্রুপ রেজাউল গ্রুপের উপর হামলা চালালে আল আমিনসহ আন্তত ৮ জন আহত হন। আহতদের কালিয়া ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতদের মধ্যে আল আমিনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। শনিবার সকাল ১১ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মো. লাহু শেখ বাদি হয়ে ২৪ জনের নাম উেেল্লখসহ অঞ্জাত নামা ৬ জনকে আসাসি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
কালিয়া থানার ওসি শেখ কনি মিয়া বলেছেন, মসজিদের ইমাম হত্যার ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ইতিমধ্যে আমরা ৩জনকে তাৎক্ষনিকভাবে আটক করি এবং বাকী খুনিদের ধরতে পুলিশের সাড়াশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার