‘সুগার ড্যাডি’দের খোঁজ দিতো সুগারবুক!

সমাজের কথা ডেস্ক॥ যৌন ব্যবসা নিরোধ আইনে মালয়েশিয়ার বিতর্কিত ডেটিং অ্যাপ সুগারবুক-এর প্রতিষ্ঠাতাকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ।
আটক ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করেনি পুলিশ। তবে সুগারবুক ওয়েবসাইট এবং গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে ওই ব্যক্তির নাম ড্যারেন চ্যান এবং বয়স ৩৪ বলে জানা গেছে।
আর্থিক সহায়তা প্রয়োজন এমন কমবয়সী নারীদের সঙ্গে বয়স্ক বিত্তবান পুরুষদের যোগাযোগ করিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় সুগারবুক।
গেল সপ্তাহেই অ্যাপটিতে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী যোগ দিয়েছে যাদেরকে ‘সুগার বেবি’ হিসেবে ডাকা হয়। আর অর্থ দেওয়া বয়স্ক ব্যক্তিদের বলা হয় ‘সুগার ড্যাডি’। এরপর থেকেই সমালোচনা শুরু হলে এই সাইটে প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া হয় বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। অ্যাপটির প্রতিষ্ঠাতাকে মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর থেকে আটক করেছে পুলিশ।
মঙ্গলবার এক টুইটে আটক ওই ব্যক্তি বলেন, “যদিও আমাদের সাইটে কোনো ধরনের নগ্নতা, প্রাপ্তবয়স্ক কনটেন্ট নেই, এমনকি যৌন ব্যবসাও নয়, তবুও আমরা যুদ্ধে হেরে গিয়েছি।”
সেইসঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “আমরা বিশ্বাস করি মালয়েশিয়ান সরকার জনগণের জন্য সবচেয়ে ভালোটা বোঝে।”
এই অ্যাপের স্লোগান হচ্ছে “হয়্যার রোমান্স মিটস ফাইন্যান্স”, যার বাংলা মানে হয়- যেখানে প্রেম আর অর্থের মিলন হয়। অ্যাপটির দাবি এতে ব্যবহারকারীদের জন্য “সুগার রিলেশনশিপ”-এর ব্যবস্থা করা হয় যার ফলে ব্যবহারকারীরা আর্থিক সহায়তার বিনিময়ে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করতে পারেন।
অ্যাপটির ভাষ্যমতে এটি হচ্ছে “একটি সামাজিক মাধ্যম, যা সমাজের উচ্চবিত্তদের সঙ্গে লাভজনক সম্পর্ক তৈরিতে সহায়তা করে।”
গত সপ্তাহে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে অ্যাপটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এতে মালয়েশিয়ার বিত্তশালীরা পড়ে এমন ১০টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে হাজার হাজার শিক্ষার্থী যোগ দিয়েছেন, যারা তাদের জীবনযাপনে আর্থিক সহায়তা পেতে এই অ্যাপ ব্যবহার করছেন।

মঙ্গলবার মালয়েশিয়ান কর্তৃপক্ষ ইন্টারনেট নীতিমালা লঙ্ঘনের দায়ে সুগারবুক ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে। ২০১৬ সালে যাত্রা করা এই অ্যাপটির গ্রাহক সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড এবং যুক্তরাষ্ট্রেও রয়েছে।

শেয়ার