মনোমুগ্ধকর নৃত্যানুষ্ঠানে যশোরে শিল্পকলা একাডেমির পিঠা উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ বারো মাসের তেরো পার্বণের দেশ বাংলাদেশে বৈচিত্র্যময় আবহাওয়ায় চলছে মাঘের শীত। শীতের কুহেলিকা কাটিয়ে আমন ধানের চাল ও খেজুর রসের গুড়ের মৌ মৌ গন্ধের সাথে বাংলার মন ভোলানো সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে ঘরে ঘরে তৈরি হচ্ছে পিঠা। যা বাংলা ও বাঙালির লোকজ সংস্কৃতিরই বহিঃপ্রকাশ। নাগরিক জীবনে এ সংস্কৃতির বহিঃপ্রকাশে যশোরে মনোমুগ্ধকর নৃত্যানুষ্ঠানে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

যশোর শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে শুক্রবার শীতের সন্ধ্যায় একাডেমি মিলনায়তনে এ উৎসব হয়।
মিলনায়তন ভর্তি এ উৎসবে মনোমুগ্ধকর নৃত্যানুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করেন পর্যায়ক্রমে শিল্পকলা একাডেমি, সুরধুনী, পুনশ্চ, মাইকেল সংগীত একাডেমি, সুরবিতান, নৃত্যবিতান, চাঁদের হাট, উদীচী, ভৈরব, উৎকর্ষ, মা নৃত্যালয় ও সুর নিকেতনের শিক্ষার্থী শিল্পীরা।

নৃত্যানুষ্ঠান শেষে বক্তব্য দেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু। শেষে হরেক রকম (পাটিসাপটা, ভাপা, সবজি, আন্দোসা পিঠা) দিয়ে আপ্যায়িত হন অতিথিরা।

উপস্থিত ছিলেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির সহসভাপতি সুকুমার দাস, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি হারুণ অর রশীদ, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তরিকুল ইসলাম তারু, যশোর কলেজের অধ্যক্ষ মুস্তাক হোসেন শিম্বা, ডা. আব্দুর রাজ্জাক মিউনিসিপ্যাল কলেজের অধ্যক্ষ জেএম ইকবাল হোসেন, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আফজাল হোসেন দোদুল, জেলা সংস্কৃতি বিষয়ক কর্মকর্তা হায়দার আলী, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সদস্য আশীষ মুখার্জী, চঞ্চল সরকার প্রমুখ। সঞ্চালনা করেন কামরুল হাসান রিপন।

শেয়ার