মাইকেল মধুসূদন দত্তের জন্মবার্ষিকীতে সাগরদাঁড়ীতে এবার মধুমেলা হচ্ছে না

যশোর প্রশাসনের উদযাপন কমিটির প্রস্তুতি সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৭ তম জন্মবার্ষিকীতে এবার সপ্তাহব্যাপী মধুমেলা হচ্ছে না। কবির জন্মস্থান যশোরের কেশবপুরের সাগরদাঁড়িতে প্রতিবছর জন্মবার্ষিকীতে সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠান হলেও করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে এবার সেটা হচ্ছে না। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবার জন্মদিনে সংক্ষিপ্ত পরিসরে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে। বুধবার দুপুরে যশোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সনেটের প্রবক্তা মধুসূদন দত্তের ১৯৭ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন কমিটির প্রস্তুতি সভায় এমন সিদ্ধান্ত নেয় যশোর জেলা প্রশাসন। সভায় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও সংস্কৃতি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান জানান, সনেট রচয়িতা মধুকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৭ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ২২ জানুয়ারি থেকে মধুভক্ত মানুষের উপস্থিতিতে মুখরিত থাকে সাগরদাড়ি ও সংলগ্ন এলাকা। মেলা উপলক্ষে কবির জন্মভূমির স্মৃতিবিজড়িত কপোতাক্ষ নদ, জমিদারবাড়ির আম্রকানন, বুড়ো কাঠবাদামগাছতলা, বিদায় ঘাটসহ মধুপল্লী সাজে অপরূপ সাজে। কিন্তু করোনার কারণে সকল প্রস্তুতিই এবার ছেদ পড়েছে। তাছাড়া সরকারি নিষেধের জন্য এবার মধুমেলা স্থাগিত করা হয়েছে। তবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে কবির ১৯৭ তম জন্মবার্ষিকীর দিনে সংক্ষিপ্ত পরিসরে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে এবারের আয়োজন। এছাড়া যশোরের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দও বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন নিয়েছে।

প্রস্তুতি সভায় জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য ও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শাম্মী ইসলাম, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, যশোর সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি একরাম-উদ-দ্দৌলা, যশোর ইনস্টিটিউটের সাধারণ সম্পাদক ডা. আবুল কালাম আজাদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মণিরামপুর সার্কেল) সোহেব আহম্মেদ, কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরাফাত হোসেন, জেলা ওয়াকার্সপার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু বকর সিদ্দিকী প্রমুখ।

শেয়ার