ট্রাক-নসিমন সংঘর্ষ শৈলকুপায় প্রাণ গেল ৭ শ্রমিকের

ঝিনাইদহ ও শৈলকুপা প্রতিনিধি॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ট্রাক ও ইঞ্জিনচালিত নসিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষে সাত নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চারজন। বুধবার (১৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার ১ নম্বর ত্রিবেনী ইউনিয়নের মদনডাঙ্গা বাজারের শ্রীরামপুর বাসস্ট্যান্ডে এ ঘটনা ঘটে। হতাহত সবার বাড়ি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কল্যাণপুর এলাকায় বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী নাজমুল হাসান সাগর নামের এক স্কুলশিক্ষক জানান, হতাহতরা সবাই নির্মাণ শ্রমিক। বুধবার সন্ধ্যায় কাজ শেষে একটি ইঞ্জিনচালিত নসিমনে খোয়া, বালু ও সিমেন্ট মিক্সার মেশিন তুলে ১৩ শ্রমিক গাদাগাদি করে উঠে ঝিনাইদহের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে মদনডাঙ্গা বাজারে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগতির একটি ট্রাক তাদের চাপা দিয়ে পাশের খাদে উল্টে পড়ে।

তিনি আরও জানান, এতে বিকট শব্দে আশপাশের লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে দেখা যায় সবাই ছিন্নভিন্ন হয়ে এখানে-সেখানে পড়ে আছেন। অনেকের শরীর থেকে হাত-পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ফলে অনেককে চেনার উপায় ছিল না। খবর পেয়ে শৈলকুপা দমকল বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

রাত ৮টায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত স্থানীয় ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার আজাদ হোসেন জানান, এখন পর্যন্ত ঘটনাস্থল থেকে সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। এদিকে ঝিনাইদহ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক শামীমুল ইসলাম নিহতের সংখ্যা সাতজন বলে জানিয়েছেন।

শৈলকুপা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আরিফুল ইসলাম জানান, শৈলকুপার শেখপাড়া এলাকা থেকে একদল নির্মাণশ্রমিক ইঞ্জিনচালিত আলমসাধুযোগে খোয়াভাঙার মিক্সার মেশিন নিয়ে ঝিনাইদহ শহরের দিকে যাচ্ছিলেন। সে সময় ঝিনাইদহ থেকে কুষ্টিয়াগামী বিপরীতমুখী একটি ট্রাকের সঙ্গে আলমসাধুর মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৬ জন মারা যান এবং গুরুতর আহত হন আরও চার জন। খবর পেয়ে ঝিনাইদহ ও শৈলকুপা ফায়ার সার্ভিস এবং পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

নিহতদের পরিচয় এখনও জানা যায়নি। আহতরা হলেন, সদর উপজেলার কলামনখালি গ্রামের আলমসাধু চালক রাব্বি হাসান (২৫), দক্ষিণ কাস্টসাগরা গ্রামের রিপন হোসেন (৩৫), হরিণাকু-ু উপজেলার শাখারিদাহ গ্রামের মেহেদি হাসান (৩২) ও অজ্ঞাত একজন। দুর্ঘটনার পর রাস্তার দুপাশে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়।

শেয়ার