সমাজের কথার ছাপাখানায় যশোর পুলিশের হামলা, দুই প্রেসকর্মীকে বেধড়ক মারপিট

 সংবাদপত্র পরিষদ, জেইউজে ও ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের নিন্দা

সমাজের কথার ছাপাখানায় যশোর পুলিশের হামলা, দুই প্রেসকর্মীকে বেধড়ক মারপিটনিজস্ব প্রতিবেদক॥ সোমবার দিবাগত রাত ১টা। শহরের কাঁঠালতলাস্থ ছাপাখানায় দৈনিক সমাজের কথা’র মঙ্গলবারের সংখ্যা প্রকাশের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। হঠাৎই সেখানে মূর্তিমান আতঙ্ক হিসেবে আবিভূর্ত হয় বেপরোয়া পুলিশ। ছাপাখানায় প্রবেশ করে প্রেসকর্মী শেখ ইদ্রিস আলী ও আব্দুল গফফারকে বেধড়ক মারপিট করে। এ সময় পুলিশ সদস্যরা অশ্রাব্য ভাষায় সংবাদপত্র কর্মীদের গালিগালাজ করেন। পরে পুলিশ চলে গেলে ইদ্রিস ও গফফারকে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়।

এদিকে, দৈনিক সমাজের কথার ছাপাখানায় পুলিশ হানা দিয়ে দু’সংবাদপত্র কর্মীকে মারপিটের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে যশোরের সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের সংগঠনগুলো।

বিবৃতিতে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে যশোর সংবাদপত্র পরিষদ। সংগঠনের সভাপতি একরাম-উদ-দ্দৌলা ও সাধারণ সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন এক বিবৃতিতে বলেন, সংবাদকর্মীরা পুলিশের মতোই সমাজ ও রাষ্ট্রীয় কাজে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে থাকেন। ফলে,তাদেরকে হয়রানি-নির্যাতন কোনোভাবেই কাম্য না। নেতৃবৃন্দ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। ভবিষ্যতে এমন দুঃখজনক ঘটনা পরিহার করার জন্য পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে সংবাদপত্র পরিষদ।

সংবাদপত্রের ছাপাখানায় হামলা ও কর্মীদের মারপিটে ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন (জেইউজে)। এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, এ ধরণের ন্যাক্কারজনক ঘটনা সংবাদপত্রের স্বাধীনতার জন্য হুমকিস্বরূপ।

এক বিবৃতিতে জেইউজে’র সভাপতি ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল, সহসভাপতি প্রদীপ ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক এইচ আর তুহিন, যুগ্ম সম্পাদক তবিবর রহমান, কোষাধ্যক্ষ স্বপ্না দেবনাথ এবং নির্বাহী সদস্য ডিএইচ ডিলশান ও রিপন হোসেন এই নিন্দা প্রকাশ করেছেন।

আরও নিন্দা প্রকাশ করেছেন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি মনোতোষ বসু, যুগ্ম মহাসচিব সাকিরুল কবীর রিটন, সদস্য নুর ইমাম বাবুল ও গোপীনাথ দাস।

আরও নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন যশোর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। সংগঠনের সভাপতি মনিরুজ্জামান মুনির ও সাধারণ সম্পাদক নুর ইমাম বাবুল এ ধরনের ঘৃণ কাজ থেকে বিরত থেকে গণমাধ্যমকে সহযোগিতার জন্য পুলিশকে আহবান করেছেন।

শেয়ার