চিতলমারীতে ইউপি নির্বাচনে মাঠে নেমেছেন জান্নাত ও জগদীশ

চিতলমারী (বাগেরহাট) প্রতিনিধি॥ আগামী মার্চে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হতে পারে, এমন চিন্তাÑ ভাবনাকে মাথায় রেখে চিতলমারীতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে। নির্বাচনের সময় যত এগিয়ে আসছে প্রার্থীদের প্রচার- প্রচরণা ততই বাড়ছে। দলীয় মনোনয়ন ও ভোটারদের দোয়া পেতে অনেক প্রার্থী মাঠে নেমেছেন। নতুনদের চলছে শুভেচ্ছা ও মতবিনিয়ম। প্রার্থীদের নিয়েও পাড়ার চায়ের দোকানসহ বিভিন্ন মহলের আড্ডায় আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে। আর ভোটারদের এই ভালবাসা ধরে রাখতে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার দু’টি ইউনিয়নে আগে ভাগেই মাঠে নেমেছেন জান্নাত ও জগদীশ নামের দুই প্রার্থী।
এ উপজেলায় ১নং বড়বাড়িয়া ইউনিয়নে নতুন প্রার্থী হিসেবে আগে ভাগে প্রচার-প্রচারণায় নেমেছেন সৈয়দ জান্নাত আলী (৩৯)। জান্নাত চিতলমারী উপজেলার বড়বাড়িয়া ইউনিয়নের ঘোলা গ্রামের সম্ভ্রান্ত সৈয়দ পরিবারের সৈয়দ মুনছুর আলীর পঞ্চম ছেলে। তিনি ২০০৩ সালে গোপালগঞ্জ সরকারি বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে হিসাব বিজ্ঞানে অনার্স পাশ করেন। পরবর্তীতে ঢাকা সরকারি তিতুমীর কলেজ থেকে এমএ পাশ করেন। ছাত্রজীবন থেকেই বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সকল কর্মকান্ডে স্বক্রিয় ভুমিকা পালন করেছেন। গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক এই নেতা বর্তমানে লুমিনাস কার্গো সার্ভিসেস ও লুমিনাস ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের পরিচালক এবং শামছুল উলুম ঘোলা মাদরাসা ও কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সভাপতি।
ভোটাদের উদ্দেশ্যে জান্নাত আলী বলেন, আপনাদের থেকে অনেক ভালোবাসা ও আদর- স্নেহ পেয়েছি। আমাকে সন্তানতুল্য হিসেবে আলিঙ্গন করে নিয়েছেন। এগিয়ে যেতে সাহস যুগিয়েছেন। শান্তি ও শিক্ষার নীড় বড়বাড়ীয়া ইউনিয়নের ভবিষ্যৎ উন্নয়নে অগ্রগতি আনতে সুপরিকল্পনা ও সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহন করা আমার, আপনার কর্তব্য। আমি আশাবাদী আপনারা সেটাই করবেন। স্বপ্নময় পথে চলতে ও উন্নয়ননকে গতিশীল করতে আপনাদের সমর্থন, আস্থা আর ভালোবাসাই আমার একমাত্র পাথেয় ।

অপরদিকে ৩নং হিজলা ইউনিয়নে এ নতুন প্রার্থী হিসেবে আগে ভাগে প্রচার- প্রচারণায় নেমেছেন জগদীশ চন্দ্র বাড়ৈ (৫৫)। উপজেলার হিজলা ইউনিয়নের কুড়ালতলা গ্রামের সম্ভ্রান্ত বাড়ৈ পরিবারের সাবেক রিলিফ কমিটির চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা গোপাল চন্দ্র বাড়ৈর দ্বিতীয় ছেলে জগদীশ। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৫ বিএসসি এবং ১৯৮৮ সালে ঢাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএসসি (বিএড) পাশ করেন। শিক্ষা জীবন থেকেই জগদীশ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। বর্তমানে তিনি চিতলমারী সার্বজনীন কেন্দ্রীয় দূর্গা মন্দিরের সাধারন সম্পাদক ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত।

ভোটাদের উদ্দেশ্যে জগদীশ বাড়ৈ বলেন, আমি আপনাদেরই সন্তান। নির্বাচনে আমি আপনাদের ভোট ও সমর্থন প্রত্যাশা করি। নির্বাচিত হলে হিজলা ইউনিয়নকে একটি মডেল হিসেবে গড়ে তোলাই আমার অঙ্গীকার।
এদিকে আগামী ইউপি নির্বাচন সম্পর্কে চিতলমারী উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ আব্দুল মজিদ জানান, সর্বশেষ ২০১৬ সালের ২২ মার্চ সারাদেশে প্রথম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই নির্বাচনে ৭৩৯ টি ইউনিয়নের সাথে চিতলমারী উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এখানে আগামী ২০২১ সালের মার্চে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে। উপর মহলের মৌখিক নির্দেশে কেন্দ্র পরিদর্শন চলছে বলেও জানান তিনি।

 

শেয়ার