অভয়নগরে স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ স্ত্রীর মৃত্যু

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি॥ স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ স্ত্রী হীরা বেগম (৩৩) শেষ পর্যন্ত মারা গেলেন। গত বৃহস্পতিবার অভয়নগর উপজেলা মরিচা গ্রামে স্বামী বিল্লাল হোসেন হীরারগায়ে কেরসিন দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে হীরা বেগমকে অভয়নগর স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স্রে ভর্তি করা হয়।

হীরা বেগমের ভাই ইয়াছিন সরদার জানান, উপজেলার সিঙ্গাড়ি গ্রামের গরুহাট সংলগ্ন বিল্লাল সরদারের সঙ্গে একমাস আগে আমার বড়বোন হীরার বিয়ে হয়। এরপর থেকে তারা পার্শবর্তী মরিজা গ্রামে ভাড়া বাড়িতে থাকতো। বিয়ের পর থেকে বিল্লাল আমার বোনের উপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে আসছিল এবং তাকে সে ভারতে নিয়ে যাওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু আমার বোন তাতে রাজি না হওয়ায় সর্বশেষ আমার বোনের গায়ে কেরোসিন দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় বিল্লাল। গত ছয়দিন খুলনা হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়াই করেন। ডাক্তারের কথামত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে তাকে আজ ঢাকায় নেয়া হচ্ছিল কিন্তু পথেই মারা গেছে আমার বোন।’
অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. টুম্পা কুন্ডু বলেন,‘ আগুনে হিরা বেগমের বুক, পিঠ ও দুই হাতের সিংহভাগই পুড়ে গিয়েছিল। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে প্রেরণ করেছিলাম। রোগীর অবস্থা আশংকাজনক ছিল।’

অভয়নগর থানার ওসি (তদন্ত) মিলন কুমার ম-ল জানান, স্বামীর দেয়া দাহ্যপদার্থ ও আগুনে দগ্ধ হীরা বেগম নামের এক গৃহিণী ঢাকা নেয়ার পথে আজ (গতকাল) ভোরে মারা গেছে বলে জেনেছি। এ ব্যাপারে গত মঙ্গলবার নারী নির্যাতন আইনে মামলা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে হত্যা মামল হবে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছি।

শেয়ার