মাগুরায় স্বামীকে বেঁধে স্ত্রীকে ‘দলবেঁধে ধর্ষণ’

মাগুরা প্রতিনিধি
মাগুরায় স্বামীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে স্ত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।
এই অভিযোগে অজ্ঞাত পরিচয় পাঁচ জনকে আসামি করে রোববার মাগুরা সদর থানায় মামলা করেছেন ওই নারী।

শনিবার রাতে সদর উপজেলার জাগলা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়।
ওই গৃহবধূর স্বামী বলেন, তিনি ও তার স্ত্রী ধান মৌসুমে বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে ঘোড়ার গাড়ি করে ধান সংগ্রহের কাজ করেন। প্রায় বিশ দিন আগে ধান সংগ্রহ করতে ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার বইনদেখালি থেকে মাগুরা সদরের জাগলা গ্রামে আসেন।

তাদের কোনো থাকার জায়গা না থাকায় জাগলা গ্রামে মাঠে পলিথিনের তাঁবু তৈরি করে বসবাস করছিলেন বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, “শনিবার রাতে অপরিচিত পাঁচজনের একটি দল ধারালো অস্ত্র নিয়ে আমাদের উপর চড়াও হয় এবং মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তারা আমাকে একটি গাছের সাথে বেঁধে রাখে এবং আমার স্ত্রীকে পাশের একটি পুকুরের কাছে নিয়ে ধর্ষণ করে।”

এই সময় ওই লোকগুলো তার কাছে থাকা পাঁচ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় বলে তিনি জানান।
“তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করার পর আমরা চিৎকার দিলে এলাকার লোকজন আমাদের উদ্ধার করে।”
মাগুরা সদর থানার ওসি জয়নাল আবেদীন বলেন, এই ঘটনায় ‘ধর্ষণের শিকার’ ওই গৃহবধূ রোববার দুপুরে মাগুরা সদর থানায় অজ্ঞাতনামা পাঁচজনকে আসামি করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।
তিনি জানান, ইতিমধ্যে ওই গৃহবধূর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

 

শেয়ার