চিতলমারীতে পুত্রবধূদের মারপিটে বৃদ্ধা শাশুড়ী, ননদসহ আহত-৩

সুবিচারের জন্য করুণ আকুতি

চিতলমারী প্রতিনিধি ॥ বাগেরহাটের চিতলমারীতে পুত্রবধূদের মারপিটে বৃদ্ধা শাশুড়ী, ননদ ও দেবরসহ তিনজন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে গুরুতর একজন চিতলমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকি দুইজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নির্যাতনের শিকার ওই বৃদ্ধা ঘটনার নেপথ্য নায়ক জীবন মন্ডলের বিচারের দাবীতে প্রশাসনের কাছে করুণ আকুতি জানিয়েছেন। এ ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে ওই নারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

শুক্রবার কান্নাজড়িতকণ্ঠে একাত্তর বছর বয়সের বৃদ্ধা শোভা রানী মন্ডল সাংবাদিকদের বলেন, আমার স্বামী ভবানী মন্ডল ৫-৬ বছর আগে মারা গেছেন। আমাদের ৫ ছেলে ও ২ মেয়ে। এদের মধ্যে ৪ ছেলে ভারতে বসবাস করে। ছোট ছেলে শ্রীকান্ত মন্ডল তার স্ত্রী সপ্না মন্ডল (ছোট সপ্না) ও সেজে ছেলে সমীর মন্ডলের স্ত্রী সপ্না মন্ডল (বড় সপ্না) এদেশে বাস করে। স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে আমি আমার ছোট মেয়ে সুষমাকে নিয়ে বসবাস করছি।

পারিবারিক কলহ নিয়ে প্রতিবেশী জয়ন্ত মন্ডলের ছেলে জীবন মন্ডলের ইন্ধনে প্রায়ই দুই সপ্না মিলে আমাকে নির্মম নির্যাতন ও মারধর করে আসছে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় ১৭ নভেম্বর বিকেলে জীবন মন্ডল ও দুই সপ্না আমাদের বাড়িতে এসে ছেলে শ্রীকান্ত মন্ডলকে (৪০) বেধড়ক মারপিট শুরু করে। আমি ও আমার মেয়ে সুষমা (৪৫) ঠেকাতে গেলে তারা আমাদেরও মারপিট করে আহত করে। সুষমা বর্তমানে চিতলমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আমি এই ঘটনার সুবিচারের জন্য প্রশাসনের কাছে করুণ আকুতি জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে জীবন মন্ডল মারপিটের কথা অস্বীকার করে বলেন, ঘটনার দিন আমি বাড়িতে ছিলাম না। এটা আমার বিরুদ্ধে একটা ষড়যন্ত্র।

অন্যদিকে পুত্রবধূ বড় সপ্না ও ছোট সপ্না নির্যাতনের কথা অস্বীকার করে বলেন, ওরাই উল্টো আমাদের মারধর করেছে। ওরা আমাদের সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করতে চায়।

তবে চিতলমারী থানার ডিউটি অফিসার এসআই শেখ আকরাম হোসেন মুঠোফোনে বলেন, বৃদ্ধা ওই নারী একটি লিখিত অভিযোগ জমা দিয়ে গেছেন। ওসি স্যার আসলে এ ঘটনায় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

শেয়ার