এমপি শাহীন চাকলাদারের নাগরিক গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে জনতার ঢল

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জননেতা শাহীন চাকলাদারের নাগরিক গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠান পরিণত হয় বিশাল জনসমুদ্রে। যশোর শহর থেকে শুরু করে গ্রাম পর্যায়ের সকল শ্রেণি পেশার মানুষ দলমত নির্বিশেষে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসেছিলেন তাদের প্রিয় নেতা যশোর উন্নয়নের কারিগর ও উন্নয়নে নেতৃত্ব দেয়া শাহীন চাকলাদারকে একনজর দেখার জন্য। এদিন যশোর শহরের ঐতিহ্যবাহী টাউন হল ময়দান ছাড়িয়ে জনসমুদ্রের ঢেউ ছিলো সিভিল কোর্ট ও দড়াটানার ভৈরব পাড় পর্যন্ত।

সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে, মুজিব সড়ক, এমএম আলী রোড, এইচএমএম রোড, গরীবশাহ রোড, পৌরসভা রোড, গাড়িখানা রোডসহ বিভিন্ন সড়ক যেন মিশে ছিল টাউন হল ময়দানে। এসব রোড দিয়ে দুপুর থেকে দলে দলে মানুষ টাউন হল অভিমুখে আসতে থাকে। তারা রং-বেরঙের প্লা কার্ড ও মাথায় ক্যাপ পরে পায়ে হেঁটে, কেউবা পিকআপভ্যান, ট্রাক ও বাসযোগে যোগদেন যশোর টাউন হল ময়দানে। যশোরের আট উপজেলার ওয়ার্ড, ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলালীগ, শ্রমিকলীগের নেতাকর্মী-সমর্থকরাও শ্লোগান দিতে দিতে গণসংবর্ধনায় যোগ দেন। এছাড়াও যশোরের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক, কৃষক, শ্রমিক আর জাতি-ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেণি-পেশার সর্বস্তরের মানুষ একনজর দেখতে আসেন প্রিয় নেতাকে।

প্রায় প্রতিটি নেতাকর্মীর হাতে শোভা পায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় ও এমপি শাহীন চাকলাদারের ছবি সম্বলিত নানান রঙের ব্যানার, ফেস্টুন, প্লা কার্ড। এর আগে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের মঞ্চে সকাল থেকেই বঙ্গবন্ধুর ভাষণ, দেশাত্মবোধক গান বাজানো হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে যশোরের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পীরা দেশাত্মবোধক গান ও নৃত্য পরিবেশন করেন।

কেশবপুর থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আসা জিল্লুর রহমান বলেন, প্রিয় মানুষটির সংবর্ধনা অনুষ্ঠান দেখার জন্য তিনি বাসযোগে যশোরে আসেন। এত লোক দেখে তিনি ‘অবাক’ হয়েছেন বলে জানান। শহরের দড়াটানায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আসা গোলাম রব্বানী বলেন, সদরের কাশিমপুর থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান দেখার উদ্দেশে তিনি এসেছেন। কিন্তু জন¯্রােতের কারণে টাউনহল ময়দানে ঢুকতে পারেননি। পরে তিনি শহরের ঈদগাহ ময়দানে প্রোজেক্টরের মাধ্যমে অনুষ্ঠান দেখেন।

শেয়ার