বিজিবির ডাটা সেন্টার ডিজাস্টার রিকভারি সাইট উদ্বোধন
দেশের তথ্য দেশে সংরক্ষণ করার জন্য আইন হচ্ছে: পলক

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে বিজিবির ব্যাটালিয়ন (৪৯ বিজিবি)-এর একটি অত্যাধুনিক ডাটা সেন্টার ডিজাস্টার রিকভারি সাইট উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তথ্য, যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, দেশের তথ্য দেশে সংরক্ষণ করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নির্দেশনায় বাংলাদেশে একটি আইন করা হচ্ছে। যে আইনটি হবে দেশের ন্যাশনাল ডেটা প্রাইভেসি প্রটেকশন অ্যান্ড লোকালাইজেশন ল। বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোর বিজিবি রিজিয়ন সদর দপ্তরের আওতাধীন যশোর ব্যাটালিয়ন (৪৯ বিজিবি) এর এই অত্যাধুনিক ডাটা সেন্টার ডিজাস্টার রিকভারি সাইটে উদ্বোধন করেন তিনি।
প্রতিমন্ত্রী পলক আরো বলেন, আজকে আমাদের জন্য একটি অত্যন্ত আনন্দের দিন। কারণ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ সীমান্ত ডিজাস্টার রিকভারি সাইট আজকে যশোরে উদ্বোধন হলো। তিনি আরো বলেন, ডেটা সেন্টার এমন একটি প্রয়োজনীয় প্রযুক্তিগত অবকাঠামো যে ডেটা সেন্টারের মাধ্যমে আমরা আমাদের ব্যাংকিং কার্যক্রম চলমান রাখতে পারছি। যে ডেটা সেন্টার ছাড়া আমরা আমাদের মিডিয়ার যত কার্যক্রম চলছে যত ধরনের তথ্য উপাত্ত আছে সেগুলোকে আমরা যদি কোথাও সংরক্ষণ করতে চাই তাহলে সেটার একটা সংরক্ষণ করার প্রযুক্তিগত অবকাঠামো প্রয়োজন। এছাড়া যেকোনো দুর্যোগ বা দুর্ঘটনায় ডাটা সেন্টারের সকল ডাটা ডিজাস্টার রিকভারি সাইট এ অধিক নিরাপত্তার সাথে সুরক্ষিত থাকবে। এ ছাড়া ডাটা সেন্টারে রক্ষিত সীমান্ত ব্যাংকের ডাটা সংরক্ষণ ছাড়াও বাংলাদেশের ডিজিটাল ডাটা নিরাপত্তায় যেকোনো সংস্থার জন্য অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিজিবি’র মহাপরিচালক বলেছেন, ‘ডাটা সেন্টার ডিজাস্টার রিকভারী সাইট’ আধুনিক, যুগোপযোগী ও গতিশীল করার লক্ষ্যে বিজিবি রিজিয়ন সদর দপ্তর যশোরের আওতাধীন যশোর ৪০ ব্যাটালিয়ন কার্যকর ভূমিকা রাখবে। আন্তর্জাতিকভাবে ডাটা সেন্টার নির্মাণের ফলে গাইড লাইন্স অনুযায়ী প্রাকৃতিক দূর্যোগ বা অন্য যে কোন ধরনের দুর্ঘটনাবশত ডাটা সেন্টারের ডাটা ক্ষতিগ্রস্তের হাত থেকে রক্ষা করার লক্ষ্যে ভিন্ন বৃহৎ কলেবরে এই ডাটা ডিজাস্টার রিকাভারী সাইট স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১৮ সালের ২৯ জুন বিজিবি মহাপরিচালকের নির্দেশক্রমে যশোর রিজিয়ন এলকায় ডাটা সেন্টারের জন্য আপদ কালীন হিসেবে ডিজাস্টার রিকভারী সাইট এর স্থান নির্বাচন করা হয়। সে মোতাবেক অবকাঠামো ও সরঞ্জামাদি সংযোজনের মাধ্যমে এই সাইটের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। বর্তমানে এই ডিজাস্টার রিকভারী সাইট একটি অনন্য মাইল ফলক হিসেবে কাজ করবে।
এসময় বিজিবি’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাফিনুল ইসলাম, বিজিবি’র উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ব্যাংক ও ফিন্যান্সিয়াল প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

শেয়ার