বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের নাগরিক শোকসভা কাজল ছিলেন মানব দরদী : এমপি শাহীন চাকলাদার

হুমায়ুন কবির, বাঘারপাড়া (যশোর)॥ যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বলেছেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ চাই। ঐক্যবদ্ধ থাকলে যেকোনো নির্বাচনে জয়ী হওয়া সম্ভব। একমাত্র আওয়ামী লীগ সরকারই শান্তি ও স্বস্তির সরকার। আওয়ামী লীগ সরকারে আছে বলেই বাংলাদেশে আজ শান্তি বিরাজ করছে। আর এসব অর্জন জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান মরহুম নাজমুল ইসলাম কাজলের নাগরিক শোকসভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, নাজমুল ইসলাম কাজল ছিলেন মানব দরদী। আওয়ামী লীগের নিবেদিত প্রাণ। তার অকাল প্রয়াণে আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ে সংগঠনের ক্ষতি হয়েছে।

শাহীন চাকলাদার আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার মানুষকে কষ্ট দেয় না। মানুষের অশ্রুজল দেখতে চায় না। তারই প্রমাণ বানভাসী মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে শেখ হাসিনা সরকার গৃহহীন মানুষের আশ্রয়ের ব্যবস্থা করেছে। একমাত্র আওয়ামী লীগই ঐক্যবদ্ধ হয়ে মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করছে। বিএনপি-জামায়াত বর্তমান সরকারকে বিপদে ফেলতে ধর্ষণের মত জঘন্য কার্যক্রম চালিয়ে নাটক শুরু করেছে। বিএনপি জামায়াত হতে সকলকে সজাগ থেকে দলকে শক্তিশালী করতে হবে। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, আগামী যেকোনো নির্বাচনে দলের কেউ স্বতন্ত্রপ্রার্থী হতে পারবে না। নেত্রীর সিদ্ধান্তের বাইরে গেলে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। এজন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বিএনপি-জামায়াতের সমালোচনা করে বলেন, দীর্ঘ ২১ বছর আমরা যখন বিরোধী দলে ছিলাম। সেই সময়ে হাজার হাজার নেতাকর্মীদের হত্যা করা হয়েছিল। চার দলীয় জোট সরকারের আমলে অসংখ্য আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের হাতুড়িপেটা করা হয়েছে। যারা এসব জঘন্য কাজে জড়িত ছিল আমরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় তাদেরকে দেখতে চাই না।

এদিন উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ বিশ্বাস। বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল মজিদ, গোলাম মোস্তফা, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা জিয়াউল হাসান হ্যাপী, রেজাউল ইসলাম, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জোৎ¯œা আরা মিলি, জেলা যুবলীগের সহসভাপতি সৈয়দ মেহেদি হাসান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ আলম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, সদর উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ বিপুল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি এস এম নিয়ামত উল্লাহ, সাবেক সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, শহর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মেহেদি হাসান রনি, বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি আতিয়ার রহমান সরদার, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার খন্দকার শহিদুল্লাহ, ইউপি চেয়ারম্যান আবু মোতালেব তরফদার, আবু তাহের আবুল সরদার, কামরুল ইসলাম টুটুল, আবু সাঈদ সরদার, জেলা পরিষদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার বিপুল ফারাজি, ইকবাল হোসেন, জামদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্পাদক আরিফুল ইসলাম তিব্বত, বন্দবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্পাদক আব্দুল হামিদ ডাকু, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জুলফিক্কার আলী জুলাই প্রমুখ।
উল্লেখ্য, গত ৭ সেপ্টেম্বর হবিগঞ্জের মাধবপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম নিহত হন।

শেয়ার