কোটচাঁদপুরে দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ

 দশ ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক, চালক বরখাস্ত

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরের সাফদারপুর রেল স্টেশনে মালবাহী দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ইঞ্জিনসহ পাঁচটি তেলবাহী ওয়াগন লাইনচ্যুত হয়। মঙ্গলবার রাত দুইটার দিকে উপজেলার সাফদারপুর ট্রেন স্টেশনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় খুলনার সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যায়।
সাফদালপুর রেলস্টেশন মাস্টার গোলাম মোস্তফা জানান, রাত পৌনে ২টার দিকে দর্শনা থেকে ছেড়ে আসা নওয়াপাড়াগামী পাথর বোঝাই একটি মালবাহী ট্রেন সাফদাপুর রেল স্টেশনে অবস্থান করছিল। এসময় বিপরীত দিক খুলনা থেকে ছেড়ে আসা পার্বতীপুরগামী কেপি ২১ আর ট্রেনটি আউটার হুম সিগন্যাল অমান্য করে লুক লাইনে প্রবেশ করে। এরফলে স্টেশনে থাকা মালবাহী ট্রেনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় হতাহতের কোনো ঘটনা না ঘটলেও একটি ট্রেনের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও বিপুল পরিমাণ তেল মাটিতে পড়ে যায়।
রেলের পশ্চিমাঞ্চলের প্রধান পরিবহন কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান, সকাল ৬ টার দিকে ঈশ্বরদী থেকে রিলিফ ট্রেন এসে উদ্ধার কাজ শুরু করে। প্রায় সাড়ে ৬ ঘন্টা উদ্ধার কাজ শেষে প্রধান লাইন মেরামত ও লাইনচ্যুত হওয়া ওয়াগন উদ্ধারের পর দীর্ঘ ১০ ঘন্টা পর বেলা ১১ টায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।
এ ঘটনায় খুলনা থেকে পার্বতীপুরগামী কেপি ২১ আর ট্রেনের চালক আনিছুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি।
এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও রেল মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট শফিকুল আজম খাঁন চঞ্চল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কোটচাঁদপুর সার্কেল) মোহাইমিনুল ইসলাম, কোটচাঁদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান শরিফুন্নেছা মিকি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাজান আলীসহ রেলের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

শেয়ার