যশোরে ফারাজী শাহাদৎ ও ফিরোজের মৃত্যুবাষিকীর আলোচনায় বক্তারা
দলের সব ত্যাগী নেতার নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আওয়ামী লীগে অনেক ত্যাগী নেতা ছিলেন বলেই বারবার আঘাত করেও কেউ এ দলকে নিশ্চিহ্ন করতে পারেনি। দেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম, গণতন্ত্র ও স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ভূমিকা রাখার জন্য দলের সব ত্যাগী নেতার নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। বুধবার বিকালে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ফারাজী শাহাদৎ হোসেন ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি এ জেড এম ফিরোজের মৃত্যুবাষিকীতে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে বক্তারা এসব কথা বলেন।

যশোর আওয়ামী লীগের সাবেক আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ফারাজী শাহাদৎ হোসেনের ১২ তম ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি এ জেড এম ফিরোজের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে জেলা আওয়ামী লীগ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগকে কেউ হারাতে পারেনি; আর পারবেও না। সদ্য শেষ হওয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ ছিলো বলেই বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছে। এই সরকার জনগণের সরকার। মহামারী করোনা থেকে আম্পান-বন্যা সব দূর্যোগে জনগণের পাশে ছিলো এবং আছে। জনগণের আস্থা অর্জন করেছে বলেই জনগণ এই সরকারের বারবার ক্ষমতায় দেখতে চাচ্ছে। আওয়ামী লীগ সরকার দেশে গণতন্ত্র পূর্ণ প্রতিষ্ঠিত করেছে। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত করেছে। এই কারণেই বিএনপির এতো মাথাব্যাথা। তারা জনগণের থেকে বহু দূরে। তাই ভোট আসলে তাদের পাশে থাকে না। ভোটের মাধ্যমে বিএনপিকে জনগণ প্রত্যাখ্যান করে। দেশে বিএনপি ষড়যন্ত্র শুরু করছে। এই ষড়যন্ত্র থেকে এই সরকারকে বাঁচাতে হলে তৃণমূল থেকে আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আলোচনা শেষে যশোর আওয়ামী লীগের সাবেক আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ফারাজী শাহাদৎ হোসেন ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি এ জেড এম ফিরোজের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন যশোর-৬ (কেশবপুর) সংসদীয় আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হায়দার গনি খান পলাশ, অ্যাডভোকেট আলী রায়হান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, এ জেড এম ফিরোজের ছোট ভাই জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট আবু সেলিম রানা, অ্যাডভোকেট ফারাজী শাহাদৎ হোসেনের ছেলে সাংবাদিক ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল। জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলামের পরিচালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আব্দুল মজিদ, এ কে এম খয়রাত হোসেন, গোলাম মোস্তাফা, সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান এস এম আফজাল হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, যশোর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ, সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা এস এম নিয়ামত উল্লাহসহ পৌর ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

শেয়ার