যশোরে ভোট কেন্দ্রে বিচ্ছিন্ন মারামারিতে ৯ জন আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর সদর উপজেলার চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণের সময় সিরাজসিংহ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন জখম হয়েছেন। এবাদে আরও ৪টি কেন্দ্রে বিচ্ছিন্ন ঘটনায় আরও সাতজন জখম হয়েছেন। এর মধ্যে পাঁচজনকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে।
হাসপাতালে ভর্তি আহতরা হলেন, সদর উপজেলায় সিরাজসিংহ গ্রামে গোলাম রসুলের ছেলে আতিয়ার রহমান (৪২) ও একই গ্রামের আজগর আলীর ছেলে ইউনুস আলী (৪৫)।
আহতরা জানান, মঙ্গলবার সকাল নয়টার দিকে স্থানীয় সিরাজসিংহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট কেন্দ্রে বিএনপি ও আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আহত ২ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
অপরদিকে শহরের মুড়লি মোড়ে নির্বাচনী কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে জনি (২০) নামে এক যুবক জখম হয়। সে ওই এলাকার আতিয়ার রহমানের ছেলে। এদিকে বিকালে সদর উপজেলার গাইদগাছি সরকারি স্কুলের মাঠে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হাতে পিতা-পুত্রসহ তিনজন জখম হয়েছে। তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলেন ওই গ্রামের মৃত হাকিম কাজীর ছেলে আব্দুল আজিজ কাজী (৬০), তার ছেলে তৌফিক এলাহী কাজী (৩২) ও মঞ্জুর এলাহী কাজী (২২)।
এছাড়া সদর উপজেলার নওদা গ্রামে নির্বাচনী মাঠে হামলায় শাহজাহান (৪৫) নামে এক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। শহরের নজির শংকরপুর এলাকায় এদিন দুপুরে জাহিদুল ইসলাম (৩৮) নামে এক ব্যক্তি জখম হয়েছেন। তিনি ওই এলাকার মোসলেম আলীর ছেলে। তিন হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। একই সময় সদর উপজেলার লেবুতলা সরকারি প্রাথমিক স্কুল মাঠে প্রতিপক্ষের হাতে ফজলুর রহমান (৪৫) নামে এক ব্যক্তি জখম হয়েছেন। তিনি ওই গ্রামের গোলাম আলীর ছেলে। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনলে চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন।

শেয়ার