ঝিকরগাছার করিম আলী মাদ্রাসার সভাপতির নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ তদন্ত শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ঝিকরগাছা উপজেলার করিম আলী আরকে আলিম মাদ্রাসায় সভাপতির বিদায় লগ্নে ৫টি পদে দুর্নীতির মাধ্যমে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগের তদন্ত শুরু হচ্ছে আজ। ঝিকরগাছা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জিল্লুর রশিদ আজ বুধবার বিকেল ৩টায় সভাপতি ও অধ্যক্ষকে আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য পেশ করার জন্য তার কার্যালয়ে হাজির হওয়ার জন্য নোটিশ করেছেন। গত ১৪ অক্টোবর একই উপজেলার কুন্দিপুর গ্রামের আওরঙ্গজেব এই ব্যাপারে অভিযোগ দিয়েছিলেন।
আওরঙ্গজেব অভিযোগে উল্লেখ করেন, তার পিতা মৃত আব্দুল আজিজ মিয়া করিম আলী আলিম মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন। এরপর থেকে বিভিন্ন সময়ে তারা ওই মাদ্রাসার উন্নয়ন কল্পে সহযোগিতা করে আসছেন। বর্তমানে ওই মাদ্রাসার সভাপতি ফজলুর রহমান। তার বিরুদ্ধে যুবলীগ কর্মী হুমায়ুন কবির হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্তসহ একাধিক মামলা রয়েছে ফজলুর রহমানের বিরুদ্ধে। আগামী ২৪ নভেম্বর ফজলুর রহমানের সভাপতির মেয়াদ শেষ হবে। এরই মধ্যে ওই মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ, অফিস সহকারী কাম হিসাবরক্ষক, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর, নিরাপত্তারক্ষী এবং একজন আয়াসহ মোট ৫টি পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। বিজ্ঞপ্তির পর থেকে সভাপতি ফজলুর রহমান ওই সকল পদের প্রার্থীর কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ নিয়েছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। দুর্নীতির মাধ্যমে ওই মাদ্রাসায় নিয়োগ বন্ধ করার জন্য যশোরের জেলা প্রশাসক, জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিয়েছেন আওরঙ্গজেব।
সভাপতি ফজলুর রহমানের বিদায়লগ্নে নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন। অভিযোগ পেয়ে জেলা শিক্ষা অফিসার ঝিকরগাছা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। তদন্ত কর্মকর্তা আজ অভিযোগকারী ও মাদ্রাসার সভাপতি এবং অধ্যক্ষের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করবেন।

শেয়ার