একদিন পরেই যশোর সদর উপজেলার চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন
নৌকার রাতদিন প্রচারে উৎসবের আমেজ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণের বাকি আর মাত্র একদিন। শেষ সময়ে ভোটের মাঠে বইছে উত্তাপ। প্রচারে ব্যস্ত আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরজাহান ইসলাম নীরা। আজ মধ্যরাত পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচার চালানোর শেষ সময়। গতকাল সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগ চালিয়েছেন প্রার্থীসহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ। সদর উপজেলাকে নাগরিকবান্ধব ও মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে ভোটারদের কাছে নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করেন প্রার্থী নীরা।
শনিবার রাতে পৌর ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রেলগেট এলাকায় পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান ইমাম বাবলু’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও যশোর পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু। বিশেষ অতিথি ছিলেন যশোর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ, সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু। বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুরজাহান ইসলাম নীরা। এসময় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ বলেন, আওয়ামী লীগ একটি প্রবাহমান দল। এই দলের আছে কোটি কোটি সমর্থক ও কর্মী। এখানে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতা আছে কিন্তু প্রতিহিংসার স্থান নেই। আমরা বঙ্গবন্ধু আদর্শের সৈনিক আর আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা। আমরা তার কর্মী হিসেবে কাজ করে যাব।

২০ অক্টোবর যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরজাহান ইসলাম নীরার নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করতে হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন, যুবনেতা তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু, সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ বিপুল, জেলা আওয়ামী আইনজীবী সমিতির সভাপতি ইদ্রিস আলী, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিল মুস্তাফিজুর রহমান মুস্তা, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান চাকলাদার মনি, ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড মহিলা কাউন্সিলর নাসিমা আক্তার জলি, জেলা যুবলীগ নেতা আজাহার হোসেন স্বপন, দপ্তর সম্পাদক হাফিজুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মেহেদী হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, সাবেক সহ-সভাপতি ও স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা নিয়ামত উল্লাহ, হাফিজুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শরীফ হিমেল, ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল্লাহ খান লিখন, সাবেক সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, সরকারি এম এম কলেজ ছাত্রলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুর রহমান তোহিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আরাফাত তরুন, পৌর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান রনি, কাজি ফয়সাল, আশরাফুল আলমসহ বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।


এর আগে একইদিন বিকালে রামনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রাজার হাট বাজারে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে প্রচার-প্রচারণা ও লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবলীগনেতা তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, রামনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাজনীন নাহার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, পৌর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান রনিসহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।


এদিকে দুপুরে যশোর শহরের পালবাড়ী এলাকায় জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। এসময় নেতৃবৃন্দ আওয়ামী লীগের নানামুখী উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন। সেইসাথে এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে নৌকা প্রতীকে ভোট প্রদানের আহ্বান জানান। উপস্থিত ছিলেন, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ, সাধারণ সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু, জেলা যুবলীগনেতা তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু, সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ বিপুল, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, পৌর ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুস্তাফিজুর রহমান, ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী আলমগীর কবির সুমন, জেলা যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক হাফিজুর রহমান, প্রচার সম্পাদক শেখ জাহিদ হোসেন মিলন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মেহেদি হাসান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, সরকারি এম এম কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আরাফাত তরুন, সৈয়দ হাসান অনিন্দ্য, পৌর ছাত্রলীগের সদস্য আশিকুর রহমান হৃদয়, কাজি ফয়সাল ইসলাম, ইয়াসিন আলমসহ বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।


অন্যদিকে, শনিবার সকালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরজাহান ইসলাম নীরা কাশিমপুর ইউনিয়নের শ্যামনগরে আয়োজিত নৌকা মার্কার র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন। এরপর যশোর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড যশোর জেলা ফোরামের উদ্যোগে নৌকার মিছিলপূর্ব সমাবেশে বক্তৃতা করেন এ প্রার্থী। সদর হাসাপাতাল মোড় থেকে শুরু হয়ে মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে চৌরাস্তায় শেষ হয়। মিছিলে অংশ নেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সহসভাপতি হায়দার গণি খান পলাশ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মুযহারুল ইসলাম মন্টু, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ আতিকুর বাবু, শহর আওয়ামী লীগ নেতা কামাল হোসেন, জেলা পরিষদ সদস্য হাজেরা পারভীন প্রমুখ। সন্ধ্যায় নওয়াপাড়া ইউনিয়নের তালবাড়িয়ায় স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাবেক শ্রমবিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর হেলাল, ইউপি চেয়ারম্যান নাসরিন সুলতানা খুশি, সাবেক ছাত্রলীগনেতা দেলোয়ার রহমান দিপু, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু, সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম মিলন, শহর স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক মাহমুদুল হাসান সুমন, যুগ্ম আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম প্রমুখ।
নৌকাকে বিজয়ের লক্ষ্যে বিকেলে চুড়ামনকাটি আমবটতলা বাজারে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মেহেদী হাসান মিন্টু। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি দাউদ হোসেন, সাবেক সহসভাপতি আবুল হোসেন খান, জেলা যুব মহিলালীগের সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের জেলা সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান বাবলু প্রমুখ।
এদিকে, নৌকা বিজয়ের লক্ষ্যে ইছালীতে নির্বাচনী সভা হয়েছে। ৫ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি সোলায়মান কবিরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহারুল ইসলাম। সঞ্চালনা করেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান মিঠু। এদিকে, দেয়াড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি প্রভাষক লিয়াকত আলীর নেতৃত্বে এলাকায় নৌকার পক্ষে একটি মোটর শোভাযাত্রা বের হয়।

শেয়ার