অপহরণের শিকার খুলনার সাংবাদিক সোহেলকে উদ্ধার দাবিতে যশোরে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর থেকে অপহরণের শিকার খুলনার সাংবাদিক ও যশোরের ব্যবসায়ী এস এম সাইদুর রহমান সোহেলকে উদ্ধার ও সেইসাথে অক্ষত অবস্থায় পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার আকুতি জানিয়েছেন তার স্ত্রী শ্রাবণী আক্তার। শুক্রবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি যশোর পুলিশ প্রশাসনের প্রতি এ দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নিখোঁজ সাংবাদিক এস এম সাইদুর রহমানের ৪ বছর বয়সী মেয়ে নুসইবা আয়াত ওরিন, তার বড় বোন আয়েশা খাতুন। সোহেল খুলনার দিঘলিয়া থানার ঘোষগাতি গ্রামের বাসিন্দা। ব্যবসার সূত্রে যশোর শহরের চাঁচড়া চেকপোস্ট এলাকায় ভাড়া থাকেন। তিনি সিএনএন বাংলা টিভি ও সমাজের কথা পত্রিকার খুলনা ব্যুরো’র দায়িত্বে আছেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শ্রাবণী আক্তার বলেন, গত ১২ অক্টোবর দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে যশোরের উপশহরের রজনীগন্ধা তেল পাম্পের সামনে থেকে তাকে অচেনা ৭-৮ জন লোক সাদাপোশাকে জোরপূর্বক মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যান। স্ত্রী শ্রাবণী আক্তারের দাবি, সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে তার স্বামীর মোবাইল ফোনে ০১৮৫৯-৮৮৫৭৭৬ নাম্বার থেকে তামান্না নামে এক নারী ফোন করেন। ওই নারী নিজেকে ব্ল্যাক মেইলের শিকার দাবি করে সোহেলের সহযোগিতা চায়। এক পর্যায়ে ওই নারী সোহেলের সাথে দেখা করতে চাইলে উপশহরের রজনীগন্ধা তেল পাম্পের সামনে আসতে বলেন। সেখানে নারীর সাথে কথা বলা অবস্থায় একটি সিলভার রংয়ের হাইএক্স মাইক্রোবাসে কয়েকজন লোক এসে সোহেলকে কথা আছে বলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অনেক স্থানে খোঁজ নিয়েও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে স্ত্রী শ্রাবণী যশোর কোতোয়ালি থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে কান্না জড়িত কণ্ঠে শ্রাবণী আক্তার আরো বলেন, ঘটনার ৪দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত তার স্বামীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তিনি তার স্বামীর অক্ষত অবস্থায় ফেরত পাওয়ার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।
এ বিষয়ে তদন্ত কর্মকর্তা যশোর সদর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক তুষার কুমার মন্ডল জানান, অপরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে তদন্ত চলছে বলে জানান তিনি।

শেয়ার