খুলনা জেলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক কাজল নিহতের মামলাটি পিবিআইকে তদন্তের আদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ খুলনা জেলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ও খুলনা তরুণ একাডেমির কোচ কাজী রিয়াজুল ইসলাম কাজল নিহতের ঘটনার মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)কে আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দীন হোসাইন কোতোয়ালি থানার প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর বিষয়টি পুলিশ পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আদেশ দিয়েছেন।
এরআগে কোতোয়ালি থানার এসআই ওয়াহিদুজ্জামান এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন আদালতে জমা দেন। তিনি আদালতকে জানান, এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানায় কোনো মামলা হয়নি। এছাড়া তিনি কাজলের শ্বশুর বাড়ি এবং আশপাশের লোকজনের মাধ্যমে জানতে পারেন, কাজল গত ২৮ মে যশোর শহরের বারান্দীপাড়ার শ্বশুর বাড়িতে আসেন। সেখানে অবস্থানকালে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। ভোর ৪টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কিংবা নিহতের স্বজনেরা থানাকে অবহিত করেনি। এমনকি এই সংক্রান্ত কোনো মামলাও থানায় করেনি।
এরআগে গত ২৯ সেপ্টেম্বর নিহতের মা রোকেয়া বেগম বাদী হয়ে যশোর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলা করেন। মামলায় নিহতের স্ত্রী যশোর শহরের বারান্দীপাড়া ফুলতলা এলাকার আমজাদ হোসেনের মেয়ে আফরিনা আক্তার সুমি, খুলনার খালিশপুর হালদারপাড়ার সামসুর রহমানের ছেলে জাহিদুল ইসলাম সবুজ, নিহতের শাশুড়ি মায়া বেগম, বারান্দীপাড়ার মনির ড্রাইভারের মেয়ে মণি বেগম ও শ্বশুর আমজাদ হোসেনকে আসামি করা হয়েছে। বিষয়টি আমলে নিয়ে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দীন হোসাইন এ সংক্রান্তে থানায় কোনো মামলা রুজু হয়েছে কিনা এ বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন আদালত। একই আদালত মঙ্গলবার মামলার ধার্য্য তারিখে পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন।

শেয়ার