যশোর শিক্ষাবোর্ডে নাম ও বয়স সংশোধনের সুযোগ ঘরে বসেই 

  • বোর্ড অফিসে ছোটাছুটির দিন শেষ, আবেদন অনলাইনে

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ঘরে বসেই যাতে সংশোধিত সার্টিফিকেট সংগ্রহ করা যায় তার উদ্যোগ নিয়েছে যশোর শিা বোর্ড। ফলে নামের ও বয়স সংশোধনের জন্য এখন থেকে কাউকে আর বোর্ড অফিসে ছোটাছুটি করতে হবে না। বোর্ডে না এসে অনলাইনে আবেদন করে নাম ও বয়সের সংশোধনের আবেদন করা যাবে। গতকাল সোমবার অনলাইনে নাম ও বয়স সংশোধন কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এটি এমন এক ইনোভেশন (উদ্ভাবন) যার মাধ্যমে কোন রকম ভোগান্তি ছাড়াই সেবা দোড়াগোড়ায় পৌঁছে যাবে। নামের ও বয়স সংশোধনের ক্ষেত্রে দুর্ভোগ ঘোচাতেই এমন উদ্যোগ। আর এই উদ্যোগের ফলে সেবা নিতে এসে আগের মতন কাউকে আর এক টেবিল থেকে আরেক টেবিলে ঘুরপাক খেতে হবে না। এখন থেকে নাম ও বয়স সংশোধনের আাবেদনের পর বোর্ডের অভ্যন্তরীণ নিয়মে সংশোধনের যাবতীয় কাজ সম্পন্ন হবে। আর তার জন্য সেবা গ্রহীতাকে বোর্ড পর্যন্ত আসতে হবে না। কোথাও ছুটতেও হবে না। সংশোধন হয়ে গেলে বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে প্রিন্ট কপি ডাউনলোড করে নেওয়া যাবে। এমনকি কোন দরকারি প্রয়োজনে সার্টিফিকেট কোন প্রতিষ্ঠানকে দেখাতে চাইলে সাইটের নির্ধারিত অপশন থেকে প্রর্দশনও করা যাবে।
তবে সংশোধিত মূল সার্টিফিকেট ( সনদ) হাতে হাতে নিতে হলে বোর্ড থেকে সংগ্রহ করতে হবে। তবে অরিজিনাল বা আসল কপি নিতে হলে তার জন্য আগের মূল সনদ জমা দিয়ে তারপর নিতে। তবে মূল সনদও যাতে আবেদনকারী ঠিকানায় পৌছে দেওয়া যায় তারও প্রক্রিয়া চলছে বলে জানানো হয়েছে। এক্ষেত্রে দুটি অপশন (সুযোগ) রাখা হবে একটি হলো বোর্ডে উপস্থিত হয়ে সনদ গ্রহণ। আর অন্যটি হলো নিজ ঠিকানায় পাঠানোর জন্য আবেদন। বোর্ড প্রতিষ্ঠার পর থেকে এখন পর্যন্ত যারা এর অধীনে বিভিন্ন সার্টিফিকেট পরীক্ষা দিয়ে সনদ পেয়েছেন তাদের সবাই এই সেবাটি নিতে পারবেন।
অনলাইনে নাম ও বয়স সংশোধন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোল্যা আমীর হোসেন। বক্তব্য রাখেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র, যশোর সরকারি শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ লেফটেন্যান্ট কর্নেল গোলাম মোস্তফা, খুলনার সৈয়দ আরশাদ আলী ও সবুরন নেছা কলেজের অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন। এছাড়া নাম ও বয়স সংশোধন সফটওয়্যারের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন উপসহকারী প্রকৌশলী কামাল হোসেন।

শেয়ার