পানি সরান, নইলে মেরে ফেলেন

ভবদহ পানি নিস্কাশন আন্দোলন কমিটির মানববন্ধন

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি ॥ ‘পানি সরান, নইলে মেরে ফেলেন’ এমন দাবিতে চার ঘন্টা অবস্থান ধর্মঘট করেছে ভবদহের জলাবদ্ধ এলাকার হাজার হাজার নারী-পুরুষ। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর দেয়া হয়েছে ছয় দফা দাবি সম্বিলিত স্মারকলিপি।
রবিবার সকাল ১১ টায় যশোরের অভয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘটের ডাক দেয় ভবদহ পানি নিস্কাশন আন্দোলন কমিটি। অবস্থান ধর্মঘটে অংশ নেন অভয়নগর ও মণিরামপুর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের পানিবন্দি হাজার হাজার নারী-পুরুষ।
ভবদহ পানি নিস্কাশন আন্দোলন কমিটির আহবায়ক ও অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক বাবুলের সভাপতিত্বে চলা অবস্থান ধর্মঘটে বক্তব্য রাখেন, নওয়াপাড়া পৌরসভার মেয়র সুশান্ত কুমার দাস শান্ত, নেহালপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কামরুজ্জামান, অভয়নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সানা আব্দুল মান্নান, কুলটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শেখর চন্দ্র, পায়রা ইউপি চেয়ারম্যান বিষ্ণুপদ দত্ত, চলিশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নাদির মোল্যা, সুন্দলী ইউপি চেয়ারম্যান বিকাশ রায় কপিল, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আলম, বিকাশ মল্লিক, মুক্তিযোদ্ধা অধির কুমার পাঁড়ে, আন্দোলন কমিটির নেতা আক্তারুজ্জামান তরফদার, নগেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, আমিনুর রহমান, রেজাউল ইসলাম, সমিরণ সরকার, দিনেশ বিশ্বাস প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন অভয়নগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোল্যা আনোয়ার হোসেন।
বক্তারা বলেন- দীর্ঘ ৪০ বছর ভবদহের মানুষ জলাবদ্ধতার শিকার হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। পশু ও মানুষে একত্রে বসবাস করছে। বন্ধ হয়েছে চাষাবাদ, নেই জীবিকা উপার্জনের পথ। মেলেনি কোন ত্রাণ বা সরকারি সহায়তা। পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতীর কারণে ভবদহ এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। পনি সরান, নইলে আমাদেরকে মেরে ফেলেন। ভবদহের জলাবদ্ধতা নিরসনে অবিলম্বে টিআরএম চালু, আমডাঙ্গা খাল প্রসস্থকরণ ও টেকা, শ্রীহরি নদীর খনন, স্লুইচ গেটে বৈদ্যুতিক সেচ পাম্প স্থাপন, ত্রাণের ব্যবস্থা করা, সেচ ব্যবস্থার মাধ্যমে আসন্ন বেরো মৌসুমে কৃষকের চাষের ব্যবস্থা করা সহ ছয় দফা দাবি দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান তারা। অন্যথায় পানিবন্দি মানুষ সকল সরকারি দপ্তরে স্বপরিবারে অবস্থান করবে বলে হুশিয়ারী প্রদান করা হয়।
অবস্থান ধর্মঘট শেষে আন্দোলন কমিটির পক্ষ থেকে অভয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাজমুল হুসেইন খাঁনের হাতে স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

 

শেয়ার