ঝিকরগাছা পৌরসভার ৫ বছরের পরিষদ ২০ বছর ক্ষমতায়

পৌরসভার নির্বাচন দাবিতে যশোরে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরের ঝিকরগাছা পৌরসভার পাঁচ বছরের জন্য নির্বাচিত পরিষদ ২০ বছর ক্ষমতায় রয়েছে। সীমানা জটিলতা সংক্রান্ত উচ্চ আদালতে মামলায় ১৫ বছর ধরে ঝুলে রয়েছে এ পৌরসভার নির্বাচন। তিন বাদীর একজন মারা গেছেন, অপর দুইজন মামলা চালাতে চান না। শুধুমাত্র মেয়র মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামালের কূটকৌশলে সেখানে নির্বাচন হচ্ছে না। অবিলম্বে ভোট গ্রহণের দাবিতে দাবিতে বুধবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোর মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে ঝিকরগাছা পৌর আওয়ামী লীগের নেতা এ.কে.এম আমানুল কাদির টুল্লু বলেন, ২০০২ সালের ২ এপ্রিল ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৩ মে নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলররা দায়িত্ব গ্রহন করেন। নির্বাচন কমিশনের বিধান অনুযায়ী শপথ গ্রহণের পর থেকে ৫ বছরের মধ্যে নির্বাচন হওয়া বাধ্যতামূলক। নির্বাচিত মেয়র মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামাল কূটকৌশল অবলম্বন করে তার নিজস্ব লোক দিয়ে সীমানা সংক্রান্ত জটিলতা সৃষ্টি করে হাইকোর্টে সঠিক সীমানা নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ চেয়ে রিট করেন। মেয়রের নিজস্ব লোক হিসেবে পরিচিত তিনজন রীট পিটিশন দায়েরকারীর দুইজন মো. সাইফুজ্জামান (৬০) ও শাহিনুর রহমান (৫৫) রিট মামলা এফিডেভিটের মাধ্যমে না চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন এবং অপরজন মো. শাহাদৎ হোসেন মৃত্যুবরণ করেন। এমন অবস্থায় বাদীবিহীন রিট পিটিশন কেন চলবে। তিনি জেলা প্রশাসনের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, ৫বছরের জন্য মেয়র কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে কিভাবে ২০ বছর ক্ষমতায় থাকে? পাশাপাশি সীমানা জটিলতায় ভোট বন্ধ থাকলে তিনি প্রশাসনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবি জানান। একই সঙ্গে মেয়র মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামালের সম্পদের ব্যাপারে দুদকের তদন্ত দাবি করেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, ঝিকরগাছা থানা তরুণলীগের সভাপতি মনিরুল ইসলাম শিপলু, পৌর সভাপতি শামীম হাসান প্রমুখ।
জানা যায়, ২০০০ সালে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় যশোরের ঝিকরগাছাকে পৌরসভা হিসাবে ঘোষণা করে। ২০০১ সালের ২ এপ্রিল ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে মেয়র নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামাল। ৫ বছর পর ২০০৬ সালের ১২ মে এই পৌরসভার মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়। এ সময় নির্বাচন হবার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই সীমানা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে মামলা হয়।
অভিযোগ প্রসঙ্গে সম্প্রতি মেয়র মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামাল বলেন, আমি তো বাদী নই, বিবাদী। মামলা নিয়ে অনেকে না বুঝে আমাকে দোষারাপ করেন। আমিও চাই দ্রুত নিষ্পত্তি হোক। ভোট হোক। আর কতদিন এভাবে থাকবো। আড়াই বছর আগেও মামলাটি নিষ্পত্তির চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু হয়নি। মামলার কোন অগ্রগতি নেই। আগের অবস্থাই আছে।

 

শেয়ার