শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দিতে নারাজ ট্রাম্প

সমাজের কথা ডেস্ক॥ যুক্তরাষ্ট্রে নভেম্বরের নির্বাচনে পরাজিত হলে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউজে এক সাংবাদিক সম্মেলনে ট্রাম্প এই অস্বীকৃতি জানান। এর মধ্য দিয়ে নির্বাচনে হারলে সহজে ক্ষমতা না ছাড়ারই আভাস দিলেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রে গণতন্ত্রের মূলভিত্তি হচ্ছে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর। নির্বাচনে হারলে বা ড্র করলে শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিপক্ষের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দেবেন কিনা- সম্মেলনে তা জিজ্ঞেস করা হলে ট্রাম্পের জবাব, “আমাদেরকে দেখতে হবে কী ঘটে। সেটা আপনারা জানেন।”

ডাকযোগে ভোটের ব্যাপারে আবার সন্দেহের কথা জানিয়ে ট্রাম্প বলেন, নির্বাচনী ফল সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়াবে বলেই তিনি মনে করেন।

বিবিসি জানায়, করোনাভাইরাসের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের বেশির ভাগ অঙ্গরাজ্যই এবার ডাকযোগে ভোট অনুষ্ঠানে আগ্রহ দেখাচ্ছে। ট্রাম্প শুরু থেকেই এই পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণের বিরোধিতা করে আসছেন।

একে ‘ব্যালট’ নামে অভিহিত করছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, “ব্যালট নিয়ে আমি জোরগলায় অভিযোগ জানিয়ে আসছি, এগুলো বিপর্যয়কর।” ডাকযোগের ব্যালট বাদ দিলে সবই শান্তিপূর্ণ হতে পারে উল্লেখ করেন ট্রাম্প বলেন, সেক্ষেত্রে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রয়োজনই পড়বে না।
রিপাবলিকান সিনেটর মিট রমনি এক টুইটে বলেছেন, “শান্তিপূর্ণ ক্ষমতা হস্তান্তর গণতন্ত্রের মূল ভিত্তি। এর অন্যথা হলে দেশের অবস্থা হবে বেলারুশের মতো। একজন প্রেসিডেন্ট এই সাংবিধানিক প্রতিশ্রুতিকে সম্মান দেখাবেন না- এমন কোনও ধরনের ইঙ্গিত অকল্পনীয় এবং তা মেনেও নেওয়া যায় না।”

ট্রাম্প ফক্স নিউজেও এক সাক্ষাৎকারে নির্বাচনের ফল মেনে নিতে আপত্তি করার আভাস দিয়ে বলেছেন, “না। আমাকে দেখতে হবে, দেখুন, আমাকে দেখতে হবে। না, আমি কেবল হ্যাঁ বলে দেব না, আবার ‘না’ও বলব না। গতবারও আমি বলিনি।”

নির্বাচনে পরাজয় মেনে না নেয়ার কথা ট্রাম্প এই প্রথম বলেননি বরং ২০১৬ সালের নির্বাচনেও ট্রাম্প একই কথা বলে এসেছেন।

শেয়ার