যশোরে ইমু হত্যা মামলায় এক আসামি আটক, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে সৈয়দ এহসানুল হক ইমু হত্যা মামলায় আসিফ হাসান নামে এক আসামিকে আটক করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। রোববার রাতে তাকে আটকের পর সোমবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়। এসময় তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। বিচারক মো. সাইফুদ্দীন হোসাইন জবানবন্দি শেষে তাকে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন। আটক আসিফ হাসান শহরের পুরাতন কসবা বিবি রোডের আমবাগান এলাকার বাবুর ছেলে।
পিবিআই সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত রোববার বিকেলে সদর উপজেলার সাতমাইল এলাকায় তার মামা লিটনের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আসিফকে আটক করা হয়। পরদিন সোমবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই’র এসআই ¯েœহাশিষ দাশ তাকে আদালতে সোপর্দ করলে আসিফ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে আদালত তাকে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।
আটক আসিফ হাসান বলেছে, সৈয়দ এহসানুল হক ইমু হত্যাকা-ের সময় দুর্জয় ও আল শাহরিয়ার নামে তার দুই বন্ধু তাকে ডেকে ঘটনাস্থলে নিয়ে যায়। কিন্তু ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকলেও সে ইমুকে খুন করেনি।
উল্লেখ্য, গত ২১ জুন সন্ধ্যারাতে উপশহর শিশু হাসপাতালের বিপরীতের একটি চায়ের দোকানে সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হন সৈয়দ এহসানুল হক ইমু। দুই পক্ষের মারামারি ঠেকানোর জের ধরে সন্ত্রাসীরা তাকে ছুরিকাঘাতে ও কুপিয়ে হত্যা করে ইমুকে। এ ঘটনায় পরদিন নিহতের পিতা সৈয়দ ইকবাল হোসেন ইকু অজ্ঞাতনামা আসামি দিয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। পিবিআই ২৩ জুন রাতে হত্যাকা-ে জড়িত আল শাহরিয়ার নামে এক সন্ত্রাসীকে আটক করে। সে পুরাতন কসবা ঘোষপাড়ার আব্দুল হান্নানের ছেলে। সেই সময় আল শাহরিয়ার আদালতে দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে ইমু হত্যাকা-ে জড়িত আসিফ হাসানসহ অন্যদের নাম প্রকাশ করেছিলো।

শেয়ার