‘জয় বাংলা টেলিমেডিসন অ্যাপে’ মিলবে বিনামূল্যে চিকিৎসকের পরামর্শ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ‘জয় বাংলা টেলিমেডিসিন অ্যাপ’ এর যাত্রা শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার ভার্চুয়াল মাধ্যমে অ্যাপটির উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপকমিটির উদ্যোগে তৈরি এই অ্যাপ থেকে মানুষ ভিডিও কলের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারবেন। এতে কোনো টাকা খরচ করতে হবে না।

আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপকমিটির সদস্য সচিব আবদুস সবুর জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সম্বলিত অ্যাপভিত্তিক টেলিমেডিসিন সেবা শুধু বাংলাদেশে নয়, সারা বিশ্বে এটাই প্রথম।

উদ্বোধনী বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, “মহামারী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্ব টালমাটাল। বিপর্যস্ত অর্থনীতি থেকে সামাজিক যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। চিকিৎসকরাও নিজে এবং রোগীর কথা বিবেচনা করে এই মহামারী থেকে বাঁচতে চেম্বারে রোগী দেখা অনেকটাই বন্ধ করে দিয়েছিলেন। এ অবস্থায় সময়ের প্রয়োজনে চিকিৎসা সেবায় নতুন ধারার সৃষ্টি হয়েছে; সেটা হল টেলিমেডিসিন সেবা।”
তিনি বলেন, “করোনাই মূলত এই পথ দেখিয়েছে। দেশে টেলিমেডিসিন সেবায় কার্যত বিপ্লব ঘটে গেছে। দ্রুতগতির ইন্টারনেট ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের মাধ্যমে সম্ভব হচ্ছে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা। অন্যথায় এই সেবা প্রদান করা সম্ভব হত না। এইসব কিছু সম্ভব হয়েছে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী পরিকল্পনা ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের মাধ্যমে।”

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “জয় বাংলা টেলিমেডিসিন অ্যাপ বাংলাদেশের চিকিৎসা খাতে একটি নতুন অধ্যায়। জয় বাংলা টেলিমেডিসিন মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে রোগী ডাক্তারদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবে এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করবে। এই অ্যাপে রোগীদের তথ্য সংরক্ষিত থাকবে ফলে এই তথ্য পরবর্তীতে রোগ নিয়ন্ত্রণের গবেষণার কাজে ব্যাবহার করা যাবে।”

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এক বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ওবায়দুল কাদের বলেন, “চলমান রাজনীতি দুটি ধারার একটি একাত্তরের চেতনার রাজনীতি, অপরটি সাতচল্লিশের চেতনার। একদিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণের অগ্রযাত্রা, অপর দিকে সাম্প্রদায়িক ভাবধারায় দেশকে পেছনের দিকে টেনে নেয়ার অপচেষ্টা। একটি ধারা উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার পক্ষে, অপরটি মিথ্যাচার আর নেতিবাচকতার বৃত্তে আবর্তিত। একটির উৎস জনগণ এবং জনআস্থা, অপরটির উৎস বন্দুকের নল।”
করোনাভাইরাস মহামারী শুরতেই অ্যাপটি তৈরির কাজ শুরু হয় জানিয়ে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এবং উপকমিটির সদস্য সচিব মো. আবদুস সবুর বলেন, এই অ্যাপের মাধ্যমে রোগীরা চিকিৎকদের সাথে ভিডিওকলে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিতে পারবেন।

“এছাড়াও অ্যাপে ক্যাটাগরিভিত্তিক বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের তালিকা, অ্যাপয়েন্টমেন্ট সিস্টেম, মেডিকেল রেকর্ড আপলোড, প্রোফাইল ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি সুবিধা রয়েছে। এছাড়াও অ্যাপে একটি ইন্টারেক্টিভ সোশ্যাল মিডিয়া সংযুক্ত করা হয়েছে। অ্যাপে রোগীদের তথ্য সংরক্ষিত থাকবে, ফলে এই তথ্য পরবর্তীতে রোগ নিয়ন্ত্রণে গবেষণার কাজে ব্যবহার করা যাবে।”

অ্যাপটি বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের মোবাইল ফোনে ডাউনলোড করা যাবে। তবে শিগগিরই আইওএস সংস্করণেও এটি যুক্ত করার আশা প্রকাশ করেছেন আবদুস সবুর।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য ও উপকমিটির চেয়ারম্যান হোসেন মনসুরের সভাপতিত্বে আইইবির সম্মানীয় সহকারী সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মো. রনক আহসান, কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য মোহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম, প্রকৌশলী আবু হাসান মাসুদ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

শেয়ার