যুক্তরাজ্যের রাস্তায় আসতে পারে স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তির গাড়ি

সমাজের কথা ডেস্ক॥ আগামী বছরের বসন্তে যুক্তরাজ্যের রাস্তায় দেখা মিলতে পারে হাত-মুক্ত গাড়ি চালনার। তবে, চালকের হাত স্টিয়ারিং হুইলে না থাকলেও, তাকে গাড়িতে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে হবে।

বিবিসি’র প্রতিবেদন বলছে, দেশটির ডিপার্টমেন্ট ফর ট্রান্সপোর্টেশন ‘স্বয়ংক্রিয় লেন মেনে চলা’ প্রক্রিয়া বা ‘অটোমেটেড লেন কিপিং সিস্টেমস’ (একেএলএস)-এর জন্য তথ্য সংগ্রহ শুরু করেছে। এ ধরনের প্রযুক্তি গাড়ির চলাচলকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং বাড়তি সময়ের জন্য গাড়িকে লেনে রাখতে পারে। তবে, নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেওয়ার জন্য চালককে গাড়িতে থাকতে হয়।

এর কারণে দূর্ঘটনা কমবে এমন দাবি তুলেছে সোসাইটি অফ মোটর ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড ট্রেডার্স।

যুক্তরাজ্যের ডিপার্টমেন্ট অফ ট্রান্সপোর্টেশনের মতে, প্রযুক্তিটিকে ৭০ মাইল প্রতি ঘণ্টা গতিবেগ পর্যন্ত সম্মতি দেওয়া যেতে পারে। একেএলএস প্রযুক্তিতে ‘ইউনাইটেড নেশনস ইকোনোমিক কমিশন ফর ইউরোপ’-এর সম্মতি রয়েছে।

ঠিক কীভাবে প্রযুক্তিটিকে নিরাপদে প্রয়োগ করা যায় সে সিদ্ধান্ত নিতে মোটর শিল্পের মতামত শুনতে চাচ্ছে যুক্তরাজ্য সরকার। অক্টোবরের ২৭ তারিখ পর্যন্ত এ ধরনের মতামত শুনবে তারা।

এ ধরনের প্রক্রিয়া নিয়ে এলে দেশটির বর্তমান আইনি কাঠামোতে পরিবর্তন আনতে হবে।

একেএলএস গাড়িগুলোকে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি হিসেবে শ্রেণীভুক্ত করা হবে কি না, সে ব্যাপারেও মতামত সংগ্রহ করছে সরকার।

দেশটির পরিবহন মন্ত্রী র‌্যাচেল ম্যাকলেইন বলেছেন, “স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তির চালকদের জন্য গাড়ি চালনাকে নিরাপদ, মসৃণ ও সহজ করতে পারে এবং যুক্তরাজ্য প্রথম রাষ্ট্র হতে পারে যারা এ ধরনের সুবিধা ভোগ করবে।”

সোসাইটি অফ মোটর ম্যানুফ্যাকচারারস অ্যান্ড ট্রেডারসের প্রধান নির্বাহী মাইক হস জানিয়েছেন, স্বচালিত প্রযুক্তি “জীবন-পরিবর্তনকারী” হতে পারে এবং আগামী দশ বছরে ৪৭ হাজার দূর্ঘটনা ঠেকাতে পারে।

অটোমোবাইল অ্যাসোসিয়েশন (এএ) প্রেসিডেন্ট এডমান্ড কিং যুক্তরাজ্যের পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন এবং বলেছেন সড়ক নিরাপদ রাখতে পারে এমন সম্ভাব্য পদক্ষেপের ব্যাপারে ভেবে যুক্তরাজ্য সঠিক কাজ করেছে।

 

 

শেয়ার