খুলনায় অতিরিক্ত যাত্রী বহন ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায় নিয়ে দ্বিমুখি অভিযান

এসএম সাঈদুর রহমান সোহেল, খুলনা ॥ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে অতিরিক্ত যাত্রী বহন ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং অবৈধ ব্যাটারি চালিত রিকসা-ভ্যান চলাচল শুরু করায় যানজট, যাত্রী হয়রানীসহ খুলনাঞ্চলের সড়কে এক ধরণের অরাজক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। একারণে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ ও জেলা প্রশাসন দ্বিমুখি অভিযানে নেমেছে।
সাম্প্রতিক কয়েকদিনের অভিযানে ২৯৮টি অবৈধ ব্যাটারি চালিত রিকসা-ভ্যান, নিবন্ধনহীন মোটরসাইকেল এবং মাহেন্দ্র-ইজিবাইক আটক করা হয়েছে। এছাড়া অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনে যাত্রীবাহি বাস, ইজিবাইক-মাহেন্দ্রকে জরিমানা করা হয়েছে।
নগরীর দৌলতপুর এলাকার বাসিন্দা কামরুন্নাহার শিরিন অভিযোগ করেন, নানা অজুহাতে ভাড়া বৃদ্ধি করা হচ্ছে। মাহেন্দ্র ইজিবাইকে ১৫ টাকার ভাড়া ৩০ টাকা ও ২০ টাকার ভাড়া ৪০ টাকা পর্যন্ত আদায় করা হচ্ছে। বর্ধিত ভাড়া না দিলে হয়রানীর শিকার হতে হয়।
অভিযান পরিচালনাকারী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিদুল ইসলাম এবং তাহমিনা সুলতানা নীলা জানান, পরিবহনে ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী ও সর্বোচ্চ ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির সরকারি নির্দেশনা থাকলেও চালকরা তা মানছেন না। অভিযানে যাত্রীদের নিকট থেকে পূর্বের ভাড়ার চেয়ে দ্বিগুন বা তারও বেশি ভাড়া আদায় করতে দেখা গেছে। এসব কারণে কয়েকটি বাস, মাহেন্দ্র ও ইজিবাইককে জরিমানা করা হয়েছে।
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) কানাই লাল সরকার জানান, সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে কঠোর অবস্থানে নেমেছে মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। অবৈধ যানবাহন আটকে ট্রাফিক বিভাগের পাশাপাশি থানাগুলোতেও অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এরই অংশ হিসেবে গত কয়েকদিনে খুলনার বিভিন্ন স্থানে ২৯৮টি ব্যাটারি চালিত অবৈধ রিকসা-ভ্যান, মাহেন্দ্র, মটরসাইকেল আটক করা হয়েছে।

শেয়ার