যবিপ্রবিতে তিন জেলার আরো ১০৭টি নমুনা পজেটিভ

যশোরে এডিশনাল এসপি ব্যাংক কর্মকর্তাসহ
নতুন আক্রান্ত ৬৯

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারে তিন জেলার আরো ১০৭টি নমুনা পজেটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছে। সোমবার রাতে এই পরীক্ষা কেন্দ্রে তিন জেলার ৩১২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ২০৫টির নমুনা নেগেটিভ এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. তানভীর ইসলাম জানান, সোমবার তাদের ল্যাবে যশোর জেলার ১৯৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৬৯টি পজেটিভ ফল দেয়। এছাড়া মাগুরার ৫০টি নমুনা পরীক্ষা করে ২০টি এবং নড়াইলের ৬৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৮টি পজেটিভ ফল পাওয়া যায়। স্বাস্থ্য বিভাগের হিসেব মতে, সোমবার বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত যশোর জেলায় মোট করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছিলেন দুই হাজার ২৫৩ জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ৩২ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক হাজার ৩০৮ জন।
যশোরে যাদের করোনা শনাক্ত হলো ঃ যশোরের যে ৬৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে, তাদের মধ্যে যশোর শহরসহ সদর উপজেলায় রয়েছেন ৩৪ জন। এছাড়া কেশবপুর উপজেলার আটজন, ঝিকরগাছার দশ, অভয়নগরের ১২ এবং মণিরামপুর উপজেলার পাঁচজনের নাম রয়েছে পজেটিভের তালিকায়। স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, যশোর শহরসহ সদর উপজেলায় শনাক্তদের মধ্যে আছেন, ৩৯/সি শহীদ রোডের ডা. এএসএম আতিকুজ্জামান (৫০), বারিনগরের রহিমা খাতুন (২৬), তেঁতুলতলার ইমরুন নাহার (৩৪) ও মাকসুদা (৪২), খয়েরতলার হুমায়ুন কবির (৪৫), সাজিয়ালির মাহফুজুর রহমান (১৭), উপশহর এ ব্লকের রুবেল (৩৮), এডিশনাল এসপি জামাল আল নাসের (৩৭), ক্যান্টনমেন্ট আবাসিক এলাকার তানিয়া রহমান (২৩) ও তাহেরা শোভা (৪০), ঘোপ ডিআইজি রোড এলাকার নাসিম রেজা (৩০), পালবাড়ির আসানুর রহমান (২৩), হরিনাথপুরের শাহরুল ইসলাম (৩৮), যশোর মেডিকেল কলেজের কর্মচারী আব্দুস শহীদ (২৭), রেল রোডের সালাউদ্দিন (৪৩), শেখহাটির অপু (৪০), স্বপ্না (৩২) ও অজ্ঞাত (২১), মোল্লাপাড়ার জামিল হোসেন (৯৫), পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আক্কাস আলী (৩৬), জেল রোডের বাহরুল ইসলাম (৭০), মুড়লির শরিফুল ইসলাম (৫০), শালিখার ওয়াসিম (৬০), ঘোপের জুয়েল (৪২), বেজপাড়ার আঁখি মিনা (৬০), রাজু আহমেদ (৩৪) ও জোসনা (৬৫), অগ্রণী ব্যাংকের জুলফিকার (৩৪), ১৮৮৫/১ নীলগঞ্জের নুর জাহান বেগম (৮৫), মুজিব সড়কের এম হাসান সোহরাওয়ার্দি (৫৬) এবং কাজীপাড়ার নাইমা দিলসাত (৩৬)। এছাড়া সদরে নমুনা প্রদানকারী মণিরামপুরের আব্দুস সালাম (৫৫), ঝিকরগাছার দিলরুবা (৪৮) এবং মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার ওয়াসিম (৬০) নামে তিন ব্যক্তির নমুনাও পজেটিভ রেজাল্ট দিয়েছে। কেশবপুর উপজেলায় আক্রান্তরা হলেন উপজেলা পরিষদের আহাদ আলী (৪০), আহমেদ আলী (৬৩), সাকিব হাসান (২৫) ও রুকাইয়া আহমেদ (২৫), বাজিতপুরের মাহমুদা (২৮), বাইসার নাজনিন নাহার (৩৮), আলতাপোলের শফিকুল ইসলাম (৩৫) এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রেশমা খাতুন (৩৫)। ঝিকরগাছা উপজেলায় আছেন কীর্তিপুরের ইব্রাহিম হোসেন (৩২), লুৎফর রহমান (৫৭) ও ফরিদা বেগম (৩৮), কৃষ্ণনগরের গৌরচন্দ্র ভদ্র (৬৫), নবীনগরের রোকসানা শারমিন (৪৫), তাসনিম (১১) ও মাহদিয়া মুহসিনাত (১৪), মোহম্মদপুরের পারভীন খাতুন (৩৭), মুজিবুর রহমান (৪৮) এবং গদখালীর জসিম উদ্দিন (৩৩)। মণিরামপুরে আক্রান্ত হয়েছেন মাগুরাহাটের আজম (২৪), হাজরাখালির রফিকুল (৪৫), শেরিপুরের আসাদুল্লাহ (৪০), বাটবিলার প্রদীপ কুমার চক্রবর্তী (৫৬) এবং আলতাপোলের শিমুল পাল (৩০)।
অভয়নগর উপজেলায় আছেন প্রভাত মল্লিক (৭০), গুয়াখোলা ছয় নম্বর ওয়ার্ডের সাইদ সরকার (৩৩), রুহুল কুদ্দুস (৫৫) ও মুরশিদা বেগম (৪৫), বুইকারার আরিফুজ্জামান (৩১), নওয়াপাড়ার মোনায়েম হোসেন (৩০), রাসেল শেখ (২৭), পায়রার দুলাল চন্দ্র (৭০) ও মৃণাল কান্তি (৬০), জোবাইদা লাকী (৪০) ও সিফাত মাহমুদ (১৮) এবং নিলুফা ইয়াসমিন (৩১)। আক্রান্তদের নামের তালিকা স্থানীয় প্রশাসনকে দেওয়া হয়েছে। তাদের চিকিৎসাসহ বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

শেয়ার