শ্রী কৃষ্ণের জন্মতিথি জন্মাষ্টমী আজ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক
সনাতন ধর্মবিশ্বাসীদের আরাধ্য যুগাবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মতিথি ‘জন্মাষ্টমী’ আজ শুরু হচ্ছে। তবে বৈশ্বিক মহামারি করোনার চলমান পরিস্থিতিতে ধর্মীয় নানা আচার অনুষ্ঠান মেনে সনাতন ধর্মবিশ্বাসীরা ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে বাসাবাড়ি ও মন্দির প্রাঙ্গণে সীমাবদ্ধ রেখে জন্মাষ্টমী উদযাপন করবেন। ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে নানাবিধ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে।
সনাতন ধর্মবিশ্বাসীদের বিশ্বাস, খ্রীস্টপূর্ব ৩২২৮ বছর আগে দ্বাপর যুগে ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে শ্রীকৃষ্ণ স্বর্গ থেকে পৃথিবীতে আবির্ভূত হন। সে মতেই সনাতন ধর্মের প্রবর্তক ও মহাবতার পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন আজ। উৎসবটি গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসারে প্রতি বছর মধ্য-আগস্ট থেকে মধ্য-সেপ্টেম্বরের মধ্যে কোনো এক সময়ে পড়ে।
উল্লেখ্য, সনাতন ধর্মবিশ্বাসীদের অন্যতম উৎসব হল ‘জন্মাষ্টমী’। দ্বাপর যুগের শেষভাগে ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে মথুরায় কংসের কারাগারে সনাতন ধর্মের প্রাণপুরুষ ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্ম হয়।
সেই হিসেবে এবছর মঙ্গলবার ১১ আগস্ট সকাল ৯টা ৬ মিনিটে অষ্টমী তিথি শুরু হয়ে ১২ আগস্ট সকাল ১১টা ১৬ মিনিটে অষ্টমী তিথি শেষ হবে বলে পঞ্জিকা সূত্রে জানা গেছে।
ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিবস উপলক্ষে এই উৎসব পালন করা হয় অর্থাৎ কৃষ্ণ জন্মের শুভ তিথিটিই ঘরে ঘরে জন্মাষ্টমী রূপে পালিত হয়। পঞ্জিকা মতে, প্রতিবছর সৌর ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে যখন রোহিণী নক্ষত্রের প্রাধান্য দেখা যায়, তখন জন্মাষ্টমী পালিত হয়। কৃষ্ণ জন্মাষ্টমীকে কৃষ্ণষ্টমী, গোকুলাষ্টমী, অষ্টমী রোহিনী, শ্রীকৃষ্ণ জয়ন্তী এবং শ্রী জয়ন্তীও বলা হয়।
সনাতন ধর্মবিশ্বাসীরা বিশ্বাস করেন কৃষ্ণ ছিলেন স্বয়ং ঈশ্বর। দুষ্টের দমন করে পৃথিবীতে শান্তি ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য তিনি অবতার হয়ে মানুষের রূপ নিয়ে পৃথিবীতে এসেছিলেন।
সারা দেশের সনাতন ধর্মবিশ্বাসীরা এদিন উপবাস, অর্চনা ও কৃষ্ণনাম কীর্ত্তনসহ বিভিন্ন আচার-উপাচারের মাধ্যমে যথাযোগ্য ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতায় উদযাপন করছে দিনটি।
এ উপলক্ষে যশোর রামকৃষ্ণ আশ্রম ও মিশনে মঙ্গলবার বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানিয়েছেন আশ্রমের অধ্যক্ষ স্বামী জ্ঞানপ্রকাশানন্দ মহারাজ। বৈশি^ক মহামারি করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ উপলক্ষে কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ব্রহ্মমুহুর্ত ভোর সাড়ে চারটায় মঙ্গল আরতির মাধ্যমে শুরু হবে জন্মাষ্টমী পূজার আনুষ্ঠানিকতা। সকাল ৬টায় দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় অনুষ্ঠিত হবে প্রার্থণা। সাড়ে আটটায় গীতাযজ্ঞ। ৯টায় শ্রীশ্রী ঠাকুর মন্দিরে নিত্যপূজা, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ভাগবৎ পাঠ।
যশোর সনাতন বিদ্যার্থী সংসদের উদ্যোগে ভার্চুয়ালে শ্রীমদ্ভগবত গীতা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান, সংসদের সমন্বয়ক বিশ্বজিৎ মজুমদার।

শেয়ার