কোভিড-১৯ মুক্ত হয়ে এলাকায় মাশরাফি

সমাজের কথা ডেস্ক॥ কোভিড-১৯ মুক্ত হয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজা নিজ সংসদীয় এলাকা নড়াইলের লোহাগড়ার মল্লিকপুরে নদীভাঙন পরিদর্শন করেছেন।
বৃহস্পতিবার সকালে তিনি মল্লিকপুরের মহিষাপাড়া ও করফা-আতপাড়ায় ভাঙন এলাকা ঘুরে দেখেন এবং সঙ্গে থাকা প্রকৌশলীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।

এ সময় নড়াইল-২ আসনের এই সাংসদ ভাঙন কবলিত এলাকার লোকজনের সঙ্গে কথা বলেন।

মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন, “সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এলাকায় নদী ভাঙন রোধে কাজ করে যাচ্ছি। মল্লিকপুরের ভাঙন কবলিত এলাকায় আপৎকালীন কাজ শুরু করা হবে এবং এখানে ভাঙন রোধে স্থায়ী ব্যবস্থাও করা হবে।”

নড়াইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী উজ্জ্বল সেনকে লোহাগড়ার ভাঙন কবলিত সকল এলাকা সশরীরে পরিদর্শন করে প্রকল্প তৈরির নির্দেশ দেন এমপি মাশরাফি।

এরপর তিনি করফা এলাকায় লোহাগড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য প্রয়াত সহ-সভাপতি মো. বাবুর বাড়ি গিয়ে তার মায়ের সঙ্গে দেখা করেন; সান্ত¡না দেন এবং তাদের পরিবারের জন্য ঈদের উপহার দেন।

এই পরিবারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে একটি সরকারি ঘর করে দেওয়া হবে বলে জানান নড়াইল এক্সপ্রেস মাশরাফি।
বাবুর পরিবারের খোঁজ নেওয়ার জন্য মাশরাফিকে ধন্যবাদ জানান বাবুর মা ও স্বজনেরা।

এ সময় মাশরাফির সঙ্গে আরও ছিলেন লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুকুল কুমার মৈত্র, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুন্সী আলাউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মসিয়ূর রহমান, মল্লিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শিকদার মোস্তফা কামাল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চঞ্চল শাহরিয়ার মীম প্রমুখ।

বাংলাদেশের সফলতম ওয়ানডে অধিনায়ক ও নড়াইল-২ আসনের সাংসদ মাশরাফি গত ১৯ জুন করোনাভাইরাস পরীক্ষা করিয়েছিলেন। পরদিন তার ফল আসে পজিটিভ। আক্রান্ত হওয়ার পর বাসায় থেকেই চিকিৎসা নেন তিনি। মাঝে দুই দফায় পরীক্ষা করিয়েও পজিটিভ ফল পাওয়া যায়।

এরপর ১২ জুলাই আবার নমুনা সংগ্রহ করা হয় এবং ১৪ জুলাই রাতে কোভিড-১৯ নেগেটিভ ফল পাওয়া যায়।

শেয়ার