বিচ্ছেদের পর ১৭০ কোটি মার্কিন ডলার দান করেছেন ম্যাকেঞ্জি

সমাজের কথা ডেস্ক॥ এক বছরে নিজের সম্পদ থেকে ১৭০ কোটি মার্কিন ডলার অনুদান দিয়েছেন ম্যাকেঞ্জি স্কট। বর্ণ বৈষম্য, এলজিবিটি অধিকার, জনস্বাস্থ্য এবং জলবায়ু পরিবর্তনসহ বিভিন্ন খাতে এই অনুদান দিয়েছেন অ্যামাজন প্রধান জেফ বেজোসের সাবেক স্ত্রী।

এর আগে ম্যাকেঞ্জি বেজোস নামেই পরিচিত ছিলেন স্কট। মঙ্গলবার এক ব্লগ পোস্টে নিজের নতুন নামও ঘোষণা করেছেন তিনি। নিজের মধ্য নাম থেকেই এটি নিয়েছেন তিনি।

প্রতিবেদনে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গত বছরই ‘গিভিং প্লেজ’-এ স্বাক্ষর করেছেন ম্যাকেঞ্জি স্কট। নিজের সম্পদের বেশিরভাগ দান করার অঙ্গীকার করেছেন তিনি। বিবাহ বিচ্ছেদের সময় ম্যাকেঞ্জিকে অ্যামাজনের চার শতাংশ শেয়ার দিয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি জেফ বেজোস।

মিডিয়ামের এক পোস্টে ম্যাকেঞ্জি বলেন, “অনেকের মতোই ২০২০ সালের প্রথমার্ধ আমার কাছে বেদনাদায়ক এবং ভয়ের ছিলো।”

“আমি আমার অঙ্গীকার পুরো করতে কাজ শুরু করেছি এই বিশ্বাস নিয়ে যে, আমার জীবন আমাকে দুইটি সম্পদ দিয়েছে, যা অন্যের কাছে মূল্যবান: যে অর্থ এই ব্যবস্থা আমাকে সরবরাহ করেছে এবং যে মানুষগুলো বিষমতার শিকার তাদের জন্য সবচেয়ে ভালো সমাধান বের করা,” যোগ করেন ম্যাকেঞ্জি।

বেজোসের সঙ্গে বিচ্ছেদের সময় ম্যাকেঞ্জির দখলে থাকা অ্যামাজনের শেয়ার মূল্য ছিলো প্রায় তিন হাজার ছয়শ’ কোটি মার্কিন ডলার। চলতি বছর অ্যামাজনের শেয়ার মূল্য বাড়ার কারণে ম্যাকেঞ্জি স্কটের সম্পদ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় হাজার কোটি ডলারে।

শেয়ার