তালার মাগুরা ভূমি অফিসের দালাল প্রদীপের অত্যাচারে এলাকার মানুষ অতিষ্ট !

তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি॥ তালার মাগুরা ইউনিয়ন ভূমি অফিসের জমি দখল, ভূমি অফিসে সেবা নিতে আসা ব্যক্তিদের সাথে প্রতারনা, দালালী, মাদক সেবন এবং ব্যবসা, সরকারি সহায়তা প্রদানের নামে নিরিহ মানুষদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়া সহ নানাবিধ অপরাধ করে বহাল রয়েছেন মাগুরা গ্রামের প্রদীপ বিশ^াস। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে এলাকার মানুষ সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর দপ্তর সহ একাধিক স্থানে অভিযোগ দায়ের করেছেন।
জানা গেছে, উপজেলার মাগুরা গ্রামের কৃষ্ণপদ বিশ^াসের ছেলে প্রদীপ বিশ^াস দীর্ঘ বছর ধরে গাঁজা ব্যবসা ও সেবন করে আসছে। গাঁজা সেবনের অর্থ যোগাড় করার জন্য সে কৌশলে মাগুরা ইউনিয়ন ভূমি অফিসে আস্তানা গড়ে তোলে। এখানে আসা সেবা গ্রহীতাদের কাছ থেকে সে নাম পত্তন, খাজনা দাখিলা কেটে দেয়া, জমির তদন্ত রিপোর্ট পক্ষে করে দেয়া সহ নানা অযুহাতে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। একপর্যায়ে সে মাগুরা ইউনিয়নের ভূমি অফিসের দেয়াল ও চাল দখল করে ভূমি অফিসের জমিতে নিজের কথিত ভূমি অফিস গড়ে তোলে। এরপর থেকে সে নিজেকে ভূমি অফিসের লোক পরিচয় দিয়ে কৌশলে মানুষদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক সারা দেশের ন্যায় তালা উপজেলার দরিদ্র মানুষের জন্য বরাদ্দ দেয়া ২ হাজার ৫শ টাকার উপকারভোগী তালিকা যাচাই-বাছাই করার জন্য তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইকবাল হোসেন সংশ্লিষ্ট এলাকার জন্য মাগুরা ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা আব্দুল জলিলকে দায়িত্ব দেন। এই সুযোগে ভূমি কর্মকর্তা আব্দুল জলিল এর নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারক প্রদীপ বিশ^াস গরীব মানুষদের কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিতে থাকে। একপর্যায়ে বিষুকাঠি এলাকা থেকে জনগন তাকে হাতেনাতে ধরে গণধোলাই দেয়।
মাগুরা এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান, প্রদীপ বিশ^াস একজন চিহ্নিত লম্পট ও প্রতারক। মাগুরা ভূমি অফিসের জমি দখল করার পর থেকে নিজেকে ভূমি অফিসের লোক পরিচয় দিয়ে সহজ সরল মানুষদের কাছ থেকে বছরের পর বছর টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এছাড়া একই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সে ইজারা বহির্ভূত বিভিন্ন হাট, বাজার দখল নিয়ে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।
তালার চরগ্রামের তৌফিকুর রহমান জানান, নিজেকে অফিসের লোক পরিচয় দিয়ে প্রতারক প্রদীপ বিশ^াস জমির নাম পত্তন করে দেবার কথা বলে তার কাছ থেকে ১২ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। কিন্তু অদ্যবদী সে জমির কাগজপত্র দেয়নি, এমনকি টাকাও ফেরৎ দেয়নি। টাকা চাইলে সে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। তিনি বলেন এবিষয়টি তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইকবাল হোসেনকে অবহিত করেছি। প্রতারক প্রদীপ বিশ^াসের অপকর্মে বাঁধা দিলে সে নিরিহ মানুষদের নানাবিধ হুমকি দেয়। বর্তমানে তার অত্যাচারে এলাকার মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। এবিষয়ে এলাকার সাধারন মানুষ সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)’র সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

শেয়ার