বাঘারপাড়ার বিপুল হোসেন খুন
ছোট ভাইকে হত্যার কথা স্বীকার করে বড় ভাইয়ের আদালতে জবানবন্দি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নিজেকে রক্ষার জন্য ছোট ভাই বিপুল হোসেনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বলে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বড় ভাই বিপ্লব হোসেন। দীর্ঘদিন ইন্ডিয়া অবস্থানের শেষে সম্প্রতি বাড়িতে আসার পর পরিবারের লোকজন বিপ্লবকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে। সে কারণে ৩০ জুন গভীর রাতে কলের হ্যান্ডেল দিয়ে এই হত্যাকা- ঘটানো হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার আটক বিপ্লব হোসেন যশোর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক জবানবন্দি শেষে তাকে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন। আটক বিপ্লব হোসেন বাঘারপাড়া উপজেলার ঘোষনাগর গ্রামের হরমুজ আলীর ছেলে।
বিপ্লব হোসেন জানিয়েছেন, বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করেন। মা ও পরে অন্য যায়গায় দ্বিতীয় বিয়ে করেন। তারা বিপ্লব এবং বিপুল দুই ভাই। বিপ্লব বড়। তিনি দীর্ঘদিন ইন্ডিয়ায় অবস্থান করছেন। সম্প্রতি তিনি দেশের বাড়িতে ফিরে এসেছেন। তারা মামা বাড়িতে থাকেন। করোনার এই সময় বাড়িতে আসার পরে ছোট ভাই বিপুলসহ সকলেই বিপ্লবকে হত্যার ষড়য়ন্ত্র করে। ঘটনার দিন ৩০ জুন রাতে সবাই ঘুমাতে গেলেও বিপ্লব না ঘুমিয়ে ঘরের পিছনের টিউবয়েলের হ্যান্ডেল খুলে ফেলেন। গভীর রাত ১২টার দিকে বিপুল ঘর থেকে বের হলে সেই হ্যান্ডেল দিয়ে তার মাথায় আঘাত করা হয়। পরে আশপাশের লোকজন বিপ্লবকে গণপিটুনি দেয়। এরপর তিনি পালিয়ে চলে যায়। পরে খবর পান বিপুল মারা গেছে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, নিহত বিপুল হোসেন পেশায় ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। জমি নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে ভাই বিপ্লবের সাথে বিপুলের বিরোধ চলে আসছিল। সে কারণে বাড়ি উচ্ছেদের জন্য বিপুলকে হুমকি দিয়ে আসছিল বিপ্লব। ঘটনার দিন ৩০ জুন রাত ১২টার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে ঘর থেকে বের হন বিপুল। ঘরের পিছনে রাস্তার পাশে প্রসাব করার জন্য বসা মাত্রই টিউবয়েলের হ্যান্ডেল দিয়ে মাথায় আঘাত করে বিপ্লব। বিপুলের চিৎকারে স্ত্রীসহ আশপাশ থেকে লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে রাত ১টার দিকে বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এই ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী শুকুরন নেছা বাদী হয়ে বিপ্লবের বিরুদ্ধে বাঘারপাড়া থানায় মামলা করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর রাতে বিপ্লবকে আটকের পর আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। বিপ্লব আদালতে ভাইকে হত্যার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

শেয়ার