৫ বছর পরে ফিরলেন অভয়নগরের পূরবী মহলদার নিখোঁজ মাকে পেয়ে আবেগাপ্লুত সন্তান

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ হারিয়ে যাওয়ার ৫ বছর পর পরিবারের স্বামী-সন্তানের কাছে ফিরলেন যশোরের পূরবী মহলদার (৫০) নামক এক মানসিক ভারসাম্যহীন নারী। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সিলেটের করিমগঞ্জের সুতারকান্দি সীমান্ত দিয়ে তিনি বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। বিএসএফ ও বিজিবি’র উপস্থিতিতে পূরবীকে তার সন্তানের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মাকে ফিরে পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন ছেলে।
পূরবী মহলদার হারিয়ে যাওয়ার প্রায় ৫ বছর পর তার সন্ধান মেলে ভারতের আসাম রাজ্যের কাছারের হরিনগর গ্রামে। রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো পূরবীর বাড়ির ঠিকানা খুঁজে বের করার চেষ্টাটি শুরু করেন ভারতের রবিনহুড আর্মির সদস্য সাংবাদিক সুজন দেবরায়। যশোরের অভয়নগর উপজেলার একতারপুর গ্রামে পূরবীর পরিবারকে খুঁজে পেতে সুজনকে সহযোগিতা করেন যশোরের পুলিশ সুপার আশরাফ উদ্দিন। পরে পূরবীকে বাংলাদেশে এনে স্বামী মহীতোষ হালদার ও একমাত্র ছেলে জয় মহলদারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার কাজটি শেষ করেন মানবাধিকার সংগঠন রাইটস যশোর’র নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক ও আসামের গোহাটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের উপ-হাই কমিশনার ডক্টর মোহাম্মদ তানভীর মনসুর। অবশেষে ৩০ জুন বেলা ১১ টার সময় সিলেটের করিমগঞ্জের সুতারকান্দি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে আসেন পূরবী। বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) আইনি প্রক্রিয়া শেষে পূরবী মহলদারকে তার ছেলে জয় মহলদারের কাছে হস্তান্তর করেন। এসময় বিএসএফ’র কোম্পানি কমান্ডার ও বিজিবি’র কোম্পানি কমান্ডার উপস্থিত ছিলেন। এদিকে, হারিয়ে যাওয়া মাকে ফিরে পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন ছেলে জয় মহলদার। মাকে জড়িয়ে ধরে ভেজা চোখে জয় বলেন, ‘মাকে ফিরে পেয়ে আমি যেন পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সম্পদ ফিরে পেলাম। যারা আমার মাকে ফিরে পেতে সহযোগিতা করেছেন তাদেরকে আমি অন্তর থেকে কৃতজ্ঞা জানাই। তাদের ঋণ আমি কোনও দিনও শোধ করতে পারবো না।’ পরে জয় মহলদার মা পূরবী মহলদারকে নিয়ে বাড়িতে ফিরেন। পূরবীকে ঘিরে তাদের বাড়িতে এখন এক আনন্দঘন পরিবেশ বিরাজ করছে।

শেয়ার