উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া শামিমুর করোনা আক্রান্ত ছিলেন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া শামিমুর রহমান (৩৮) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। সোমবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে তার নমুনা পরীক্ষা শেষে শরীরে জীবাণু মিলেছে বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। শামিমুর রহমান শহরের চুয়াডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড আনোয়ারা ফার্মেসির মালিক। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন।
তিনি জানিয়েছেন, সোমবার সকালে যবিপ্রবি থেকে পাঠানো ১৪২টি নমুনা পরীক্ষা করে যশোর জেলায় মোট ৪২জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এই তালিকায় শামিমুর রহমানের নামও রয়েছে।
ডা. রেহেনেওয়াজ জানান, গেলো ২৬জুন শুক্রবার রাত পৌনে ১০টার দিকে যশোর শহরের কাজীপাড়ার বাসিন্দা আনিসুর রহমানের ছেলে শামিমুর রহমান খুলনার বেসরকারি একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এর আগে শুক্রবার সকালে তাকে যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে মারা যাওয়ার পর গভীর রাতে তার মৃতদেহ বাড়িতে আনা হয়। ২৭জুন শনিবার দুপুরে কোয়ান্টাম ফাইন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীরা কারবালা কবরস্থানে তাকে দাফন সম্পন্ন করেন। মারা যাওয়ার ৩দিন পরে পরীক্ষার ফলাফলে স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা পজেটিভ হিসাবে তাকে চিহিৃত করেন।
যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ আহমেদ জানান, করোনার উপসর্গ নিয়ে শামিমুর রহমান কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। নিশ্চিত হতে নমুনা পরীক্ষায় পজেটিভ ফলাফল এসেছে। পরে বিষয়টি তার পরিবারের সদস্যদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

শেয়ার