তৃণমূল ফুটবলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর জামাল-সাবিনা

সমাজের কথা ডেস্ক॥ এশিয়ার তৃণমূল ফুটবলের উন্নয়নে এএফসির নেওয়া গ্রাসরুট চার্টারে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। চলতি বছরের ডিসেম্বরে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনে আবেদন করার পরিকল্পনাও করছে সংস্থাটি। এর আগের কার্যক্রমে দেশের তৃণমূল ফুটবলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে পুরুষ ও মহিলা দুই বিভাগের জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূইয়া ও সাবিনা খাতুনকে বেছে নিয়েছে বাফুফে।

এক ভিডিও বার্তায় রোববার বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ জানান, এএফসির তিন ক্যাটাগরির মধ্যে ব্রোঞ্জ ক্যাটাগরিতে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার পরিকল্পনার কথা।

“এএফসির গ্রাসরুট চার্টারে তিনটি ক্যাটাগরি রয়েছে-ব্রোঞ্জ, সিলভার ও গোল্ড। ইতোমধ্যে এশিয়ার ২৮টি দেশ এই চার্টারে অংশগ্রহণ করেছে বা অংশগ্রহণ করার জন্য কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। আমরাও এ বছরের শেষের দিকে ডিসেম্বরে এএফসির কাছে আবেদন করব, যেন আমরা ব্রোঞ্জ ক্যাটাগরিতে অন্তর্ভুক্ত হতে পারি। এর আওতায় আমরা তৃণমূলে কিছু কাজ সম্পাদন করতে চাই।”

“এজন্য দুজন অ্যাম্বাসেডর কাজ করবে-জামাল ভূইয়া ও সাবিনা খাতুন। তারা দুজনে সম্মতি দিয়েছেন। তাদের মূল কাজ হবে আমরা যে চারটি অঞ্চল বাছাই করেছি-ঢাকা, ফেনী, নীলফামারী ও মাদারীপুর-এই চারটি জোনে অ্যাম্বাসেডররা যাবেন এবং তাদেরকে তৃণমূল ফুটবল সম্পর্কে জানাবেন, উদ্বুদ্ধ করবেন। যেন স্থানীয়রা তৃণমূল পর্যায়ে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন, কীভাবে গ্রাসরুটের উন্নতি করে জাতীয় দলের উন্নয়ন করা যায়-সেগুলো দেখবেন।”

বাফুফের মাধ্যমে পাঠানো ভিডিও বার্তায় তৃণমূল নিয়ে কাজ করতে মুখিয়ে থাকার কথা জানান জামাল, সাবিনা দুজনেই। জামাল বলেন, “বাফুফেকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, আমাকে তৃণমূল ফুটবলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হওয়ার সুযোগ করে দেওয়ায়। আমি গর্বিত ও সম্মানিত বোধ করছি। বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের ফুটবলার নিয়ে কাজ করার জন্য মুখিয়ে আছি।”

তৃণমূল পর্যায়ের ফুটবলের সমৃদ্ধির আশায় সাবিনা বলেন, “ফুটবল ফেডারেশনকে ধন্যবাদ আমাকে তৃণমূলের ফুটবলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর করায়। ইচ্ছা থাকবে তৃণমূলের ফুটবল যেন আরও এগিয়ে যায়ৃআমরা এটা নিয়ে কাজ করতে পারি। তৃণমূলের ফুটবল যেন আরও সমৃদ্ধ হয়, সেই প্রত্যাশা করি।”

শেয়ার