৮ লাখ টাকা যৌতুক দাবিতে দুই সন্তানের জননীকে মারপিট

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ৮ লাখ টাকা যৌতুক দাবিতে মারপিট করে তাড়িয়ে দিয়েছে দুই সন্তানের জননী কহিনুর বেগমকে। এই ঘটনায় কহিনুর বেগম বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার কোতোয়ালি মডেল থানায় স্বামী রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন।
আসামি রফিকুল ইসলাম সদর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের মৃত রওশন আলী বিশ্বাসের ছেলে। বর্তমানে তিনি যশোর শহরের বারান্দী মোল্যাপাড়া আমতলা মোড়ের ফজলুল করীম টুটুলের বাড়ির ভাড়াটিয়া।
বাদীর দায়ের করা মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, ১৯৯৭ সালে পারিবারিকভাবে রফিকুল ইসলামের সাথে তার বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তারা দুইটি সন্তানের জনক জননী। কিন্তু বিয়ে পর থেকে বিল্ডিংয়ের সাব ঠিকাদারি করবে বলে ৮ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে বিভিন্ন সময় কহিনুরকে শরীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিল তার স্বামী। বাদী হয়ে পিতার বাড়ি থেকে ৫ লাখ টাকা এনে দেন কহিনুর। বাকি থাকা ৩ লাখ টাকার জন্য গত ১৫ মে রাতে বারান্দীপাড়ার ভাড়া বাসায় এলোপাতাড়ি মারপিট করতে থাকে। কহিনুরের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে মারপিটের হাত থেকে রক্ষা করে। পরে তাকে তার পিতার বাড়িতে তাড়িয়ে দেয়। এরপর থেকে তার স্বামী রফিকুল ইসলাম তার গ্রামের বাড়ি বলরামপুরে অবস্থান করছে। তিনি আরো বলেছেন, তার স্বামী ইতিপূর্বে আরো ৩/৪টি বিয়ে করেছেন।

শেয়ার