বাগেরহাট শিশু অংগনের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিচ্ছে বাড়িতে

বাগেরহাট প্রতিনিধি ॥ বাগেরহাট শিশু অংগন বিদ্যানিকেতন করোনা পরিস্থিতির কারণে ছাত্র ছাত্রীদের কথা চিন্তা করে ব্যতিক্রমি উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। মা পালন করেছের শিক্ষকের ভূমিকা। মায়েরা এখন শিক্ষকের বাড়িতে বসে ছাত্র-ছাত্রীর প্রথম সাময়িক পরীক্ষা নিচ্ছেন। মা শিক্ষক হিসাবে পরীক্ষায় পরিদর্শকের ভূমিকা পালন করছেন। বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সহ সকল শিক্ষিকারা ছাত্র ছাত্রীদের বাড়ি পরিদর্শন করছেন।
এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ হাফিজা জামান শিল্পী জানান, করোনা পরিস্থিরির কারণে কোমলমতি ছাত্র ছাত্রীরা বই থেকে দূরে না থাকে তার জন্য আমরা মে মাস থেকে আমাদের ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষার সাজেসন পৌঁছে দিয়েছি। আমরা বাসায় বসে প্রত্যেক ছাত্র ছাত্রীর পরীক্ষা সম্পন্ন করছি। এতেকরে তারা বই থেকে দূরে থাকছে না বইয়ের সাথেই থাকছে। যদিও মায়েদের একটু কষ্ট হলেও তারা এ পরিস্থিতির কারণে মেনে নিচ্ছেন। আমাদের এই ব্যতিক্রমি উদ্যোগ মায়েদের কাছে ভাল লেগেছে। আমরা বন্ধের মধ্যে ছাত্র ছাত্রীদের লেখাপড়ার খোঁজ খবর রাখছি।
তিনি জানান, পরীক্ষা শুরু হলে আমরা ছাত্র ছাত্রীদের বাড়িতে গিয়ে দেখেছি ছাত্র ছাত্রীরা টেবিলে বসে পরীক্ষা দিচ্ছে আর মা শিক্ষকের মত তাদের পাশে দাড়িয়ে রয়েছেন, অথচ তার সন্তান লিখতে পারছেনা মা কিন্তু তাকে বলে দিচ্ছেন না মা। এটাই আমাদের অর্জন। আমরা মাকে এই জায়গায় আনতে পেরেছি। তিনি আরো জানান , সরকার যতদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না খুলবে ততদিন এভাবে ছাত্র ছাত্রী বাাড়তে বসে লেখা পড়া করবে।
পুরাতন বাজার এলাকার অভিভাবক স্বপ্না রানী পাল বলেন, শিশু অংগন বিদ্যানিকেতন করোনা পরিস্থিতির কারণে ছাত্র ছাত্রীন স্বাস্থ সুকষার কথা চিন্তা করে ব্যতিক্রমি এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে, এতে আমরা খুশি। তিনি বলেন আমার সন্তান পরীক্ষা দিচ্ছে আর আমি নিজেই শিক্ষকের ভূমিকা পালন করছি এটাত আমার কাছে বড় পাওয়া।
আরেক অভিভাবক খাদিজা আক্তার আখি বলেন, আমার সন্তানের শিক্ষক আমিই। এটাই এবার প্রমাণ করেছি। শিক্ষকের মত পরীক্ষা নিয়েছি। শিশু অংগন বিদ্যানিকেতন আমাদের এখানে নিয়েে গছে। এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যে শিশু অংগন বিদ্যানিকেতনের ব্যতিক্রমি উদ্যোগকে সাধুবাধ জানাই।

শেয়ার