পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে ‘চড় মেরে’ ফের আলোচনায় ক্রিকেটার সাব্বির

সমাজের কথা ডেস্ক॥ রাজশাহীতে এক পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে চড় মারার অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন সময় অসদাচরণে সাজা ভোগ করা ও বর্তমান জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটার সাব্বির রহমানের বিরুদ্ধে।

রোববার বিকালে নগরীর বেলদারপাড়ায় নিজের বাসস্থানের সামনে এ ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ ও এক জনপ্রতিনিধি জানান।

এ সময় আরও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের আরও পরিচ্ছন্নতা কর্মী তার বাড়ির সামনে জড়ো হওয়ার পর হট্টগোল শুরু হলে পুলিশ ও স্থানীয় এক ওয়ার্ড কাউন্সিলর গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, ময়লা সংগ্রহের ভ্যান রাখা নিয়ে সাব্বিরের সঙ্গে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের এক পরিচ্ছন্নতা কর্মীর কথা কাটাকাটি হয়।

“এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয় বলে শুনে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। পরে স্থানীয় কাউন্সিলর বিষয়টি সমাধান করে ফেলেন।”

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযীম বলেন, বিকাল পৌনে ৫টার দিকে সাব্বির রহমান প্রাইভেটকারে তার বাড়ির কাছে পৌঁছেন। ওই সময় বাড়ির ফটকে ভ্যান দাঁড় করিয়ে তাতে ময়লা তুলছিলেন এক পরিচ্ছন্নতা কর্মী। দশ তলা ওই ভবনের ছয় তলায় সাব্বির থাকেন। ময়লার ভ্যানের কারণে তার গাড়ি যেতে পারছিল না।

কাউন্সিলর নিযাম বলেন, “সাব্বির পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে ভ্যানটি সরাতে বললে বাদশা নামের ওই কর্মী তার কথায় সাড়া দেননি। এক পর্যায়ে সাব্বির রেগে গেলে ওই পরিচ্ছন্নতা বলেন, ‘আমাদের কাজই তো ময়লা সরানো। ময়লা নিয়েই চলে যাব।’”

“এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে সাব্বির পরিচ্ছন্নতা কর্মী বাদশাকে চড়-থাপ্পড় মারেন। পরে অন্য পরিচ্ছন্নতা কর্মচারীরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। তখন পুলিশসহ আমি গিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেই।”

নিযাম আরও বলেন, দুইজনেই যুবক। ভুল বোঝাবুঝি থেকে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। সাব্বির পরে সরি বলেছেন।

তবে এ বিষয়ে কথা বলতে সাব্বিরের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে সম্ভব হয়নি।

গত বছরের সেপ্টেম্বরের পর থেকে জাতীয় দলের বাইরে আছেন সাব্বির রহমান। অসদাচরণের জন্য বেশ কয়েকবার শাস্তি ভোগ করেছেন এই ক্রিকেটার।
ঘরোয়া ক্রিকেটের ম্যাচে এক কিশোর দর্শককে পেটানোয় গত জানুয়ারিতে ৬ মাসের জন্য ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল সাব্বিরকে। সঙ্গে ২০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছিল এবং বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল্।

২০১৮ সালে ফেইসবুকে এক ব্যক্তিকে গালাগাল ও মারধরের হুমকি দিয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে বিসিবির ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা ভোগ করেন। ওই সাজা ভোগ করার পর আন্তার্জাতিক ক্রিকেটেও সাজা ভোগ করেন।

এর আগে ২০১৬ সালে বিপিএলে বড় অঙ্কের আর্থিক জরিমানা করা হয়েছিল তাকে। বিসিবি তখন অপরাধ সুনির্দিষ্ট করে না জানালেও বলেছিল, “গুরুতর শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে শাস্তি।”

ওই বছরেরই জুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের সময় দেরাদুনে ড্রেসিং রুমে বিত-ার এক পর্যায়ে সতীর্থ মেহেদী হাসান মিরাজের গায়ে সাব্বির হাত তুলেছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছিল। এছাড়াও নানা সময়ে তার বিরুদ্ধে ছোটখাট অভিযোগ উঠেছে।

শেয়ার